বিয়ের দিন ঘুম থেকে ডেকে তুলে মাদরাসা ছাত্রীকে কোপালো যুবক

রংপুর ব্যুরো: প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার লোহানীপাড়ায় বিয়ের দিন ঘুম থেকে ডেকে তুলে তারমিনা আক্তার ফুলতি (১৪) নামে নবম শ্রেণীর এক মাদরাসা শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

আজ বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের সাজানোগ্রাম এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।

তারমিন উপজেলার লোহানীপাড়া দাখিল মাদরাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রী ও তোয়ার আলীর মেয়ে। বর্তমানে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এই ঘটনার পরেই ঘাতক শাখাওয়াত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বদরগঞ্জ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লোহানীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাকিব হাসান ডলু শাহ্।

হাসপাতাল ও স্থানীয় গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, বদরগঞ্জ উপজেলার পার্শ্ববর্তী মিঠাপুকুর উপজেলার বড়বালা ইউনিয়নের পশ্চিম বড়বালা এলাকায় তারমিনা আক্তারের বড় বোন তহমিনার বিয়ে হয়। আত্নীয়তার সম্পর্কে ওই এলাকার মোনায়েম হোসেনের বখাটে ছেলে শাখাওয়াত হোসেন প্রেমের প্রস্তাব দেয় তারমিনাকে। এতে তারমিনা সাড়া না দেয়ায় তাকে প্রতিনিয়তই উত্ত্যক্ত করতো সে। এর মধ্যে আজ বুধবার তারমিনা আক্তারের বিয়ের দিন তারিখ ঠিক হয় লোহানীপাড়া ইউনিয়নের গাছুয়াপাড়া এলাকায় আবু সাঈদের ছেলে সাকিরুল ইসলামের সঙ্গে। এ ঘটনা জানতে পেয়ে শাখাওয়াত হোসেন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন তারমিনার ওপর।

এক পর্যায়ে মোটরসাইকেল যোগে ভোরের দিকে নিজ বাড়ি থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার দুরে তারমিনার বাড়িতে আসে শাখাওয়াত। বাড়ির সবাই যখন ঘুমিয়ে ছিলো তখন ঘুমন্ত তারমিনাকে ডেকে সবার অজান্তে দরজার কাছে ছুরি দিয়ে পায়ে মুখে কপালে ও পাজরে উপর্যুপরি কুপিয়ে আঘাত করে। তারমিনা চিৎকার দিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে বাড়ির লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। এ অবস্থায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে অজ্ঞান হয়ে পড়ে তারমিনা। আশপাশের লোকজন ছুটে এসে শাখাওয়াত হোসেনকে ধাওয়া দেয়। মোটরসাইকেল নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় সে। পরে তারমিনাকে গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনাটির কথা শুনেছি। কিন্তু এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ দিতে থানায় আসেনি। একজন পুলিশ কর্তকর্তাকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারকে আইনী সহায়তা দিতে পাঠানো হয়েছে।

স্বাআলো/এস