জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে ভিয়েনা বঙ্গবন্ধু পরিষদ

ঢাকা অফিস: জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অষ্ট্রিয়ার পক্ষ থেকে দুই দিনব্যাপী জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে।

ভিয়েনা বঙ্গবন্ধু পরিষদের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সোমবার (১৬ আগস্ট) জানানো হয়, এ উপলক্ষে গত ১৩ আগস্ট শুক্রবার, মসজিদে নূর-এ-মদিনাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের সকল সদস্যের রুহের মাগফেরাত কামনা করে জুমার নামাজ শেষে এক দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এ দোয়া মাহফিলে বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি রবিন আলী সংগঠনের নেতৃৃবৃন্দ, অষ্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অষ্ট্রিয়ার উদ্যোগের যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে রবিবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে রাজধানী ভিয়েনার একটি রেস্টুরেন্টের হল রুমে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সবাইকে নিয়ে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের পর দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সেখানে অনুষ্ঠিত শোক সভায় সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অস্ট্রিয়ার সভাপতি রবিন আলী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক বিকাশ ঘোষ।

জাতির পিতার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ও কর্মজীবনের ওপর আলোচনা ও তার স্মৃতির প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও গভীর শোক প্রকাশ করে সভায় রবিন আলী বলেন, স্বাধীনতার প্রাণপুরুষ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু তার আদর্শ সদা জীবন্ত। যা বাঙালিদের নিরন্তর জাগ্রত ও উজ্জীবিত রেখেছে। জিয়া বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর সংবাদ শুনে রাষ্ট্রের দায়িত্ব পালন না করে তিনি বলেছিলেন কি হয়েছে? ভাইস প্রেসিডেন্ট যিনি আছেন তিনি দায়িত্ব পালন করবেন। জেনারেল জিয়ার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড প্রমাণ করে তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত।

তিনি বলেন, হত্যাকারীরা এখনো কাজ করে যাচ্ছে। বিপদ এখনো শেষ হয় নাই, সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যে কোনো কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি তার হাতকে শক্তিশালী করতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

সভার প্রধান অতিথি কাউন্সিলর এন্ড গ্রাফ বলেন, এরকম হত্যাকাণ্ড আমি কখনো শুনিনি এবং দেখিনি।

সাগরমাথা নেপালী স্পোর্ট ক্লাব অস্ট্রিয়ার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নিরঞ্জন হাওলাদার, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনার সহ সভাপতি মানিক চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা নুসরাত সুলতানা মিষ্টি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নূর, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব বিশ্বজিৎ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক বিকাশ ঘোষ সভায় বক্তৃতা করেন।

সভা শেষে জাতির পিতাসহ অন্যান্য শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

স্বাআলো/এসএ

.