বঙ্গবন্ধু এনেছেন স্বাধীনতা, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আসবে অর্থনৈতিক মুক্তি: এমপি নাবিল আহমেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে যশোরে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৬ আগস্ট) বিকালে শহরের পুরাতন কসবা ঘোষপাড়ায় এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল শেষে গণভোজ বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হয়ে বক্তব্য দেন যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ।

যশোর সদর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন বিপুলের আয়োজনে এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবছর ১৬ আগস্ট ব্যক্তিগত উদ্যোগে আনোয়ার হোসেন বিপুল এই আয়োজন করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্বের অন্যতম আপোষহীন নেতা। বঙ্গবন্ধুর ত্যাগের বিনিময়ে স্বাধীন বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে। আর তার কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক মুক্তির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন করাই প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য।’

সভাপতির বক্তব্য আনোয়ার হোসেন বিপুল বলেন, ‘জাতির পিতাকে হত্যা করেও যারা পুরো বাঙালি জাতিকে কলঙ্কিত করেছে, তাদের সবার ফাঁসির রায় বাস্তবায়ন করতে হবে। এই অনুষ্ঠান থেকে আমরা পালাতক খুনিদের দেশে এনে ফাঁসির রায় বাস্তবায়ন করার দাবি করছি।’

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে: এমপি কাজী নাবিল

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি দাউদ হোসেন দফাদার, জেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন ও লেবুতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলীমুজ্জামান মিলন।

শহর মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক তছিকুর রহমান রাসেলের সঞ্চলনায় বক্তব্য রাখেন জেলা যুবমহিলা লীগের সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী, জেলা যুবলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক শেখ আলাউদ্দিন মুকুল, সদর উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান বাবলু, জেলা শ্রমিকলীগের শ্রম ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সেলিম রেজা পান্নু, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সিদ্দিক, সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মাজহারুল ইসলাম মাজহার, শহীদুজ্জামান শহীদ ও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রুহুল কুদ্দুস।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা শ্রমিকলীগের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, বর্তমান সহ-সভাপতি জবেদ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ শাহিন মাহামুদ, শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি সেলিম হোসেন, কাশিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহিদুর রহমান শহীদ, জেলা ওলামালীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম, দেয়াড়া ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক জাফর ইকবাল, যুগ্ম-আহবায়ক আখতারুল কবির মিলন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জাকির হোসেন, জেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি মাহাবুব আলম বিদ্যুৎ, সাধারণ সম্পাদক আহসানুল করিম রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শরীফ মাসউদ হিমেল, সাবেক শিক্ষা ও পাঠাগার সম্পাদক রেযোয়ান হোসেন মিথুন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক ওবাইদুল ইসলাম রাকিব, শহর শাখা সভাপতি আব্দুল কাদের, সদর শাখা সভাপতি আলমগীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, যুবলীগ নেতা শহিদুল ইসলাম রিপন, হাসানুজ্জামান, যবিপ্রবি ছাত্রলীগের ফিশারীজ বিভাগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইকরামুল কবির দ্বীপ, চুড়ামনকাটি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তানভির রকসি, ছাত্রলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম শফিক, শামীম আহমেদ প্রমুখ।

স্বাআলো/এসএ

.