মানুষকে ভালো রাখাই শেখ হাসিনার মুখ্য উদ্দেশ্যে: এমপি নাবিল

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের কচুয়া ইউনিয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে প্রথমেই স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়ার প্রক্রিয়া গ্রহণ করেন। সেজন্য তিনি বিনামূল্যে বাংলার মাঠে মাঠে গভীর নলকূপ স্থাপন করেন। সর্বপ্রথম কৃষি ব্যবস্থাকে তিনি আধুনিকায়ন করার উদ্যোগ নেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর মনে কোনো অহংকার ছিলো না। রাষ্ট্রপ্রধান হয়েও তিনি সহজেই মানুষের সাথে মিশে যান। সাধারণ জনগণ অন্তর থেকে বঙ্গবন্ধুকে ভালবাসতেন। বঙ্গবন্ধু জীবিত থাকলে অন্য কারো কখনো ক্ষমতায় আসার সুযোগ ছিলো না। সেইজন্য ষড়ন্ত্রকারীরা পরিকল্পনা অনুযায়ী বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে।’

সফল সংগঠক কাজী নাবিল আহমেদ পাচ্ছেন জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার

বুধবার (১৮ আগস্ট) কচুয়া ইউনিয়নের ভগবতীতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর মত শেখ হাসিনারও বাংলার মানুষের প্রতি টান রয়েছে। শেখ হাসিনা বাংলার মানুষের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করেন। মানুষকে ভালো রাখাই শেখ হাসিনার মুখ্য উদ্দেশ্যে। সেইজন্য শেখ হাসিনাকে নিয়ে বেশি ষড়যন্ত্র হয়। স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি বিএনপি ও জামায়াত শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তাকে খুবই ভয় পায়। তারা নতুন নতুন ষড়যন্ত্রে মেতে উঠে। দেশের স্বার্থে সবাইকে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।’

আলোচনা সভা শেষে দোয়া মাহফিল ও গণভোজ বিতরণ করা হয়। এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল, জেলা যুবমহিলা লীগের সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী ও লেবুতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলীমুজ্জামান মিলন।

সদর উপজেলা শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের সভাপতি সাহের খান রবির সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান বাবলু, জেলা শ্রমিকলীগের শ্রম ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সেলিম রেজা পান্নু, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সিদ্দিক, সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মাজহারুল ইসলাম মাজহার, কচুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা সরোয়ার হোসেন, রেজা কাজী, কচুয়া ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক ইশারত আলী, যুগ্ম আহবায়ক ওহিদুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রুহুল কুদ্দুস ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য ইমরান আলী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জাকির হোসেন, সাবেক সহ-সভাপতি জাবের হোসেন জাহিদ, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের জেলা সভাপতি মাহাবুব আলম বিদ্যুৎ, সাধারণ সম্পাদক আহসানুল করিম রহমান, শহর ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক রেযোয়ান হোসেন মিথুন, শহর মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আব্দুল কাদের, সাধারণ সম্পাদক তছিকুর রহমান রাসেল, ছাত্রলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম শফিক প্রমুখ।

স্বাআলো/এসএ

.