পদ্মায় পানি বৃদ্ধি অব্যাহত, কুষ্টিয়ার ৪০ হাজার মানুষ পানিবন্দি

জেলা প্রতিনিধি, কুষ্টিয়া: জেলার পদ্মা নদীতে অস্বাভাবিকহারে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার চরাঞ্চলের দুই ইউনিয়নের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ এখন পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চরাঞ্চলের ১৫টি গ্রাম ও চিলমারী ইউনিয়নের ২০টি গ্রামে পানি ঢুকে পড়ায় ওই সকল গ্রামের মানুষ এখন পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। ফলে বেড়েছে তাদের দুর্ভোগ দুর্দশা।

দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান, গত কয়েকদিন ধরে পদ্মা নদীতে অস্বাভাবিক হারে পানি বৃদ্ধির ফলে চরাঞ্চলের দুই ইউনিয়নের প্রায় ৩৫টি গ্রাম বন্যা কবলিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ওইসকল গ্রামের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ। বন্যার পানি বৃদ্ধির ফলে আমন ধান, পাটক্ষেত ও মরিচক্ষেতসহ বিভিন্ন ধরনের কয়েক হাজার হেক্টর জমির ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে।

তিনি আরো জানান, পানিবন্দি ওইসকল মানুষকে আশ্রয়ের জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়ে আসার প্রস্ততি চলছে। কোনো মানুষ যেনো অনাহারে না থাকে সেজন্য দূর্গত এলাকায় শুকনা খাবার পাঠানো হয়েছে।এজন্য কবলিত এলাকায় ভাঙ্গনরোধে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে।

এদিকে কয়েককদিন ধরে পদ্মা নদীতে অস্বাভাবিকভাবে পানি বৃদ্ধির ফলে দৌলতপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ১৯টি গ্রামের মধ্যে পদ্মাচরের ১৭টি গ্রাম এবং চিলমারী ইউনিয়নের ১৮টি গ্রাম বন্যা কবলিত হয়েছে। বন্যাকবলিত এসব গ্রামের ৪০ হাজার মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে।

স্বাআলো/এস