যশোরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উন্নীত করা হচ্ছে: বিমান প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবদেক: বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলম এমপি বলেছেন, ঢাকার বাইরে বেশ কয়েকটি বিমান বন্দর আন্তর্জাতিকে উন্নীত করা হয়েছে। সর্বশেষ কক্সবাজার বিমান বন্দর আন্তর্জাতিক উন্নীত করা হয়েছে। যশোরকেও আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে উন্নীতকরণ প্রক্রিয়াধীন। তারই অংশ হিসেবে আধুনিক টার্মিনাল নির্মাণ কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।

ইউএস বাংলা এয়ার লাইন্সের উদ্যোগে বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে যশোর থেকে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সরাসরি ফ্লাইট চালু উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সুন্দরবনকে ঘিরে পর্যটন খাত বিকাশে কাজ করছে সরকার। সুন্দরবন কেবল দেশের মধ্যে নয় সারাবিশ্বে গৌরবময় স্থান। বিদেশী এ্যাভিয়েশন শিপগুলো পর্যটক নিয়ে সন্দুরবনে আসতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। সে লক্ষ্যে ১৫-২০টি স্পটে ইকোটুরিজম চালু করার চিন্তা করতে যাচ্ছে সরকার। স্পটগুলো তৈরির সময় সুন্দরবনের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য যাতে নষ্ট না হয় সেটিও বিবেচনায় নিয়ে কাজ করছে সরকার। এজন্য বুয়েটকে দিয়ে একটি সার্ভেও করানো হয়েছে। নতুন নতুন স্পষ্ট চিহ্নিত করা হয়েছে। এইসব নতুন স্পট ঘিরে বিদেশী পর্যটককের আকৃষ্ট করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ব্রিটিশ ভারতের প্রথম কালেক্টরেট যশোরে। এই জেলার ঐতিহাসিক গুরুত্ব রয়েছে। যশোরের ফুল, সবজি বিখ্যাত। উৎপাদিত ফুল সবজির ন্যায্য মূল্য যাতে কৃষক পায়, দেশের বাইরে সহজে পাঠানো যায়, সেই ব্যবস্থা করা হবে। কাউকে পিছনে ফেলে নয়, সবাইকে সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দীন, যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) অধ্যাপক ডা. নাসির উদ্দিন ও ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার তাদের বক্তব্যে যশোর-কলকাতা ফ্লাইট চালুর দাবি জানান। একই সাথে তারা পর্যটনের খাত হিসেবে সুন্দরবনকে আরো গুরুত্ব দেয়ার তাগিদ দেন।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিন, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল্লাহ আল মামুন।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারসহ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) যশোর থেকে চট্টগ্রাম সরাসরি ফ্লাইট চালুর মধ্যদিয়ে যশোর-চট্টগ্রাম ও যশোর-কক্সবাজার রুটের সরাসরি ফ্লাইট চালু করলো ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স। উদ্বোধনী দিনে যশোর চট্টগ্রাম ফ্লাইট চালু হয়েছে। পহেলা অক্টোবর যশোর-কক্সবাজার ফ্লাইট চালু হবে।

এদিকে, যশোর থেকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে বিমান চলাচল শুরু হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনেই যাত্রীসেবা দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে বেসরকারি এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। সরেজমিনে যশোর বিমান বন্দরে গিয়ে দেখা যায় সকাল ৯টা থেকে যশোর বিমানবন্দরে যাত্রীরা আসতে শুরু করেন। করোনার কারণে কঠোর ছিলো যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার নির্দেশনা। প্রবেশদ্বারে পেরিয়ে টিকেট কাউন্টারগুলোতে যাওয়ার আগেই যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে, মাস্ক ও হ্যান্ডস গ্লাভস নিশ্চিত করার পাশাপাশি সব ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর কাউন্টারে যাচ্ছেন যাত্রীরা। সেখান থেকে বোর্ডিং পাস সংগ্রহ করে নির্ধারিত স্থানে যাচ্ছেন।

যশোর থেকে চট্টগ্রামগামী নজরুল ইসলাম নামে এক যাত্রী বলেন, ‘যশোর চট্টগ্রাম রুটে বিমান চলাচল শুরু হওয়ায় ভালো হয়েছে। দীর্ঘ যানবাহন যাতায়াত হতে রক্ষা পেয়েছি। ফ্লাইট চলাচল শুরু হওয়ার প্রথম দিনে চাকরির কাজে যাচ্ছি।

তুহিন হোসেন নামে আরেক যাত্রী বলেন, ‘গাড়িতে করে দীর্ঘ যাতায়াত। এটা অনেক সময় হয়ে ওঠে না। শারীরিক দিক দিয়েও ক্ষতি হয়। এখন ফ্লাইট খুলে দেয়ায় সময়ও বাঁচবে এবং ভ্রমণও সহজ হবে। যশোর চট্টগ্রাম রুটে ফ্লাইট চলাচল শুরু হওয়ায় খুবই খুশি হলাম। এ ছাড়া পর্যটকদের সময় ও অর্থকে সাশ্রয়ও হবে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে ইউএস বাংলার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম বলেন, বৃহত্তর যশোর অঞ্চলের যাত্রীদের বহুদিনের প্রত্যাশিত যশোর থেকে চট্টগ্রামে ফ্লাইট শুরু করেছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স। যাত্রীদের সময় ও খরচকে প্রাধান্য দিয়ে দেশের অন্যতম বেসরকারি বিমান সংস্তা ইউএস বাংলা এয়ার লাইন্স প্রাথমিকভাবে সপ্তাহে তিনদিন যশোর থেকে চট্টগ্রামে ফ্লাইট পরিচালনা করবে। প্রতি রবি, মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার যশোর থেকে সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে উড্ডয়ন করবে। একই দিন বিকাল ৫টা ১০ মিনিটে চট্টগ্রামের হযরত শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে যশোরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে। সকল প্রকার ট্যাক্স ও সারচার্জসহ যশোর থেকে চট্টগ্রামে ওয়ানওয়ের নূন্যতম ছয় হাজার টাকা ও রিটার্ন ভাড়া ১২ হাজার টাকা। এছাড়া যশোর থেকে কক্সবাজারে ওয়ানওয়ের নূন্যতম ভাড়া ছয় হাজার ৫০০ টাকা ও রিটার্ন ভাড়া ১৩ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। বর্তমানে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সেরর বিমান বহরে মোট ১৪টি এয়ারক্রাফট রয়েছে। যারমধ্যে চারটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০, সাতটি ব্র্যান্ডনিউ এটিআর ৭২-৬০০ ও তিনটি ড্যাশ ৮-কিউ ৪০০।

স্বাঅোলো/এস

.