টিকা তৈরি করে বিদেশেও রফতানি করবো: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস: দেশে করোনার টিকা তৈরি করে দেশের চাহিদা মিটিয়ে তা বিদেশেও রফতানি করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আমাদের কথা দিয়েছে, করোনার টিকা তৈরি করতে যা যা প্রয়োজন তারা সব ধরনের সাপোর্ট আমাদেরকে দেবে। আর এতে বাংলাদেশ টিকা তৈরির পর বিদেশেও রফতানি করতে পারবে।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে মাদকাসক্তি নিরাময় ও মানসিক স্বাস্থ্য পরামর্শ কেন্দ্রের (ওয়েসিস) উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা একদিনে ভ্যাকসিনের ৮০ লাখ ডোজ দিয়েছি। যা পৃথিবীর অনেক দেশ এখনো দিতে পারেনি। আমাদের সামনে বিজয় দিবস, এ উপলক্ষে ৮০ লাখেরও বেশি মানুষকে একদিনে টিকা দিতে পারবো বলে আশা রাখি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করেছেন করোনার টিকার জন্য। তিনি বলেছেন, যত টাকাই লাগুক দেশের প্রতিটি মানুষকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হবে। যাতে করে সারাদেশের মানুষ সুরক্ষিত থাকতে পারে। টিকা নিলে করোনায় আক্রান্ত হলেও অন্তত মৃত্যু ঘটে না।

তিনি বলেন, টিকাদানে বাংলাদেশ অনেক দেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। আমরা প্রায় সাড়ে তিন কোটি মানুষকে করোনা টিকার প্রথম ডোজ দিয়েছি। আর দ্বিতীয় ডোজ দিতে সক্ষম হয়েছি প্রায় দুই কোটি মানুষকে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কমিটমেন্ট ছিলো, বাংলাদেশের জন্য ২০ শতাংশ করোনার টিকা ফ্রি দেয়া। কিন্তু তারা বলেছে, বাংলাদেশ যেহেতু ভালো টিকা দিতে পারছে, এতে আমাদের ৪০ শতাংশ ফ্রি দেয়া হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, করোনা এখন আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে, এটা আমাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।

স্বাআলো/এস

.