চমেক খুলছে ২৭ নভেম্বর, ৩০ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে (চমেক) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় বিভিন্ন মেয়াদে ৩০ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করেছে কতৃপক্ষ। আগামী ২৭ নভেম্বর খুলবে চমেকে। তবে এ সময় মেয়েদের ছাত্রাবাস চালু থকালেও ছেলেদের ছাত্রাবাস বন্ধ রাখা হবে বলে জানিয়েছে চমেক কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) চমেক একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এই সব সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চমেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সাহেনা আক্তার।

গত ২৯-৩০ অক্টোবর চমেক ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এরপর অনির্দিষ্টকালের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হল বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

এর আগে, সোমবার (২১ নভেম্বর) সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে কমিটি। তদন্ত কমিটির প্রধান চমেকের সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মতিউর রহমান খান চমেকের অধ্যক্ষের কাছে প্রতিবেদন জমা দেন। এ সময় তদন্ত দলের পাঁচ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

অনির্দিষ্টকালের জন্য চমেক বন্ধ ঘোষণা, শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ

এ ব্যাপারে চমেকের অধ্যক্ষ ডা. সাহেনা আক্তার জানান, প্রতিবেদনে কিছু পর্যবেক্ষণ দেয়া হয়েছে। কোনো সুপারিশ করা হয়নি। সংঘর্ষের ঘটনার জন্য ছাত্রলীগের দুই পক্ষকে দায়ি করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি মূলত ওই দিনের সংঘর্ষে আহত ও প্রত্যক্ষদর্শী ছাত্রদের সাক্ষ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদন তৈরি করেছে।

প্রসঙ্গত, ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের ওই সংঘর্ষে মাহাদি জে আকিব নামের এক শিক্ষার্থী মারাত্মকভাবে আহত হন। চিকিৎসকরা তখন জানান যে আকিবের মাথার হাড় ভেঙে গেছে এবং মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। পরে অপারেশন করে তার মাথার হাড়ের একটি অংশ খুলে পেটের চামড়ার নিচে রাখা হয়। ওই হাড় আরেকটি অপারেশনের মাধ্যমে আগের জায়গায় প্রতিস্থাপন করা হবে বলে জানান চিকিৎসকরা। আকিবের আহত হওয়ার ঘটনায় ১৬ জনকে আসামি করে ৩০ অক্টোবর রাতে পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের করেন কলেজের পঞ্চম বর্ষের ছাত্র তৌফিকুর রহমান। এ মামলায় কয়েকজন শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

স্বাআলো/এস

.