ডিসেম্বরে ৩ দিবস উদযাপন উপলক্ষে যশোরে প্রস্তুতি সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ৬ ডিসেম্বর যশোর মুক্ত দিবস, ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অুনষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) কালেক্টরেট সভা কক্ষে এই তিন দিবস উদযাপন উপলক্ষে সভা অুনষ্ঠিত হয়।

যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, সহসভাপতি ও পৌরমেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা হায়দার গণী খান পলাশ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন, যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আক্তারুজ্জামান, বীরমুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, বীরমুক্তিযোদ্ধা মুযহারুল ইসলাম, বীরমুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসেন দোদুল, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম উদ দ্দৌলা, ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির সভাপতি হারুন অর রশীদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুকুমার দাস, জেলা শিক্ষা অফিসার একেএম গোলাম আযম, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক লায়লা শিরিন সুলতানা প্রমুখ।

সভায় দিবসগুলোতে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়িত্ত্বশাসিত এবং বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকাসহ বিভিন্ন পতাকা দ্বারা সজ্জিত করণের সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া সূর্যোদ্বয়ের সঙ্গে সঙ্গে ৫০বার তোপধ্বনি মাাধ্যমে বিজয় দিবসের সূচনা, সরকারি আধা সরকারি, স্বায়িত্ত্বশাসিত, বেসরকারি ভবনে, বিপণী বিতান ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে, উপজেলা পর্যায়ে, পৌরসভা পাড়া মহল্লায় জাতীয় পতাকা যথাযথভাবে উঠানো ও নামানো, বিজয়স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শামস উল হুদা স্টেডিয়ামে পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, বিএনসিসি, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, কারারক্ষী, স্কুল, কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান, স্কাউটস, রোভা স্কাউট, গার্লসগাইড, শিশু কিশোর সংগঠন, কর্তৃক কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে প্রদর্শন। বেলা ১১ টায় টাউন হল মাঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে বীরমুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা, বিকেল সাড়ে ৩টায় শামস উল হুদা স্টেডিয়ামে প্রবীণদের হাটা প্রতিযোগিতা, বিকেল ৪টায় প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা জেলা প্রশাসন বনাম পৌরসভা নাগরিক একাদশ, সাড়ে ৫টায় মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বির্নিমাণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ ও ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার শীর্ষক আলোচনা, বিজয় দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আলোচনা, সকল মসজিদে বাদ জোহর এবং অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে সুবিধাজনক সময়ে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও মাদকবিরোধী জনমত সৃষ্টির জন্য আলোচনা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া, হাসপাতাল, কেন্দ্রীয় কারাগার, বৃদ্ধাশ্রম, কিশোর উন্নয়ণ কেন্দ্র, ডেকেয়ার, শিশু পরিবার, ভবঘুরেসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানসমূহে উন্নতমানের খাবার পরিবেশের সিদ্ধান্ত হয়।

স্বাআলো/এসএ