চৌগাছায় অভিনব কায়দায় ছাগল চুরির সময় নারীসহ তিন চোর হাতেনাতে ধরা

আজিজুর রহমান, চৌগাছা: যশোরের চৌগাছায় অভিনব কায়দায় ছাগল চুরি করার সময় এক নারী ও দুই পুরুষ চোরকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়েছে গ্রামবাসী।

আটক দুই চোর আবু জার গিফারী (২৪), শাহ আলম মোড়ল (৩২) বেনাপোলের বারোপোতা এবং সুফিয়া খাতুন (৪৫) দৌলতপুর গ্রামের বাসিন্দা।

এ বিষয়ে ছাগলের মালিক আব্দুল মান্নান ও ইমরান হোসেন চৌগাছা থানায় মামলা করেছেন।

চৌগাছায় গুদামের তালা ভেঙে ৩০০ মণ ধান-পাট-হলুদ ও কলাই চুরি

শনিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার স্বরূপদাহ ইউনিয়নের খড়িঞ্চা নওদাপাড়া গ্রামে প্রকাশ্যে দিবালোকে ছাগল চুরির সময় গ্রামবাসীর হাতে আটক হয় ওই তিন চোর। এসময় একটি ছাগল নিয়ে তাদের অপর দুই সহযোগী পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে হেফাজতে নেয়।

স্থানীয়রা জানান, কয়েকদিন আগে গ্রামের এক কৃষকের গোয়াল থেকে তিনটি গরু চুরি যায়। যা আর পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে তারা সতর্ক ছিলেন। শনিবার দুপুরে চোর চক্রের পাঁচজনের একটি গ্রামের পাকা রাস্তায় একটি আলমসাধু (তিনচাকার স্থানীয় যানবাহন) রাখে। এবং মাঠে চরতে থাকা ছাগলকে পাউরুটি খেতে দিয়ে কাছে ডেকে ওই গাড়িতে বাঁধতে থাকে। গ্রামের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে জোট বেঁধে এক নারীসহ তিন চোরকে ধরে ফেলে। এসময় একটি ছাগল নিয়ে তাদের অপর দুই সহযোগী অন্য গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তিন চোরকে আটক করে গণপিটুনি দেয়ার সময় চৌগাছা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে তাদের চৌগাছা থানায় নেয়।

এরআগে গত বৃহস্পতিবার চৌগাছা শহরের বিভিন্নস্থান থেকে দিনে দুপুরে অন্তত ১০টি ছাগল চুরি যায়। বেশিরভাগ ছাগলই নারী চোরেরা ধরে নিয়ে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। দোকানি বা পথচারিরা যার ছাগল সে তাদের বাড়ির নারীরা নিয়ে যাচ্ছেন ধারণায় বাঁধা দিতে পারেনি। সন্ধ্যায় ছাগলের মালিকরা খোজাখুঁজি শুরু করলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

শহরের ইসলামী ব্যাংকের পিছনে একটি ঝুপড়ি বাড়িতে বসবাসকারী চৌগাছা খাদ্যগুদামে ডেইলি শ্রমিক আব্দুল কাদের জানান, তার একটি বকরী ছাগলের কয়েকদিন আগে দুটি বাচ্চা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ছাগলটি বাড়ি থেকে শহরে বের হয়ে দুপুর গড়িয়ে বিকেলেও বাড়ি না ফিরলে বাচ্চা দুটির চেচামেচিতে আব্দুল কাদের ও তার স্ত্রী ছাগল খুঁজতে গেলে দোকানিরা বলেছে দুপুর বারোটার দিকে একজন মহিলা ছাগলটি ধরে নিয়ে গেছে।

আব্দুল কাদের আরো জানান, দোকানিরা ভেবেছি তার মেয়ে বা বাড়ির কেউ নিয়ে যাচ্ছে, এজন্য কিছু বলিনি। তার ছাগলটির বাজারমূল্য দশ বারো হাজার টাকা।

চৌগাছা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এনামুল হক মুঠোফোনে বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের গণপিটুনির হাত থেকে তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি। তাদের বিরুদ্ধে গ্রামের আব্দুল মান্নান ও ইমরান হোসেন চুরির বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম সবুজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। তাদের রবিবার আদালতে পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, চৌগাছায় সম্প্রতি গরু, ছাগল, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন দ্রব্যাদি চুরি হঠাৎ করে বেড়ে গেছে। শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) ভোর রাতে শহরের দুটি দোকানের তালা ভেঙে ২৮৩ মণ বস্তায় ভর্তি ধান, পাট, হলুদ ও মাসকলাই চুরির ঘটনা ঘটে। কয়েক দিন আগে দুটি গরু চুরি করে পালাবার সময় প্রায় চল্লিশ কিলোমিটার তাড়া করে পিকআপসহ এক চোরকে আটক করে পুলিশ। তবুও চুরি থামছেনা। প্রতিদিনই শহর বা কোনো না কোনো গ্রাম থেকে মোটরসাইকেল, গরু বা ছাগল চুরি হচ্ছে।

স্বাআলো/এসএ