করোনার নতুন চিকিৎসা পদ্ধতির অনুমোদন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: কয়েক বছর ধরে বিশ্বব্যাপী আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনাভাইরাস। বিজ্ঞানীরা করোনাভাইরাস রোধে নিয়মিত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনার নতুন চিকিৎসা পদ্ধতির অনুমোদন দিয়েছে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে।

ডব্লিউএইচও এক বিবৃতিতে বলছে, করোনায় সংক্রমিত গুরুতর রোগীদের ক্ষেত্রে কর্টিকস্টারয়েডস ওষুধের সঙ্গে আর্থ্রাইটিসের বারিসিটিনিব মেডিসিন প্রয়োগ করা যাবে। এতে রোগীর ভেন্টিলেশনে যাওয়ার ঝুঁকি কমবে।

ওমিক্রনের গুচ্ছ সংক্রমণ, ভয়াবহ ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

প্রথম পদ্ধতিতে গুরুতর কোভিড রোগীদের চিকিৎসার জন্য কর্টিকোস্টেরয়েডের সঙ্গে আর্থ্রাইটিসের ওষুধ ব্যারিসিটিনিব ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে। ডব্লিউএইচও’র বিশেষজ্ঞ কমিটি জানিয়েছে, এ ক্ষেত্রে রোগীর ভেন্টিলেটরের প্রয়োজনীয়তা কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

দ্বিতীয়টি, সট্রোভিম্যাব নামে মনোক্লোনাল অ্যান্টিবডি ব্যবহারের মাধ্যমে চিকিৎসা। ডায়াবেটিস বা ইমিউনোডেফিসিয়েন্সির মতো রোগীর করোনার ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি কার্যকর হতে পারে।

নির্দেশিকায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, যেসব করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি করার আশঙ্কা বেশি তাদের ক্ষেত্রে সট্রোভিম্যাব ব্যবহারের করা যেতে পারে। আর যাদের হাসপাতালে ভর্তির আশঙ্কা নেই তাদের দরকার সট্রোভিম্যাব ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। তবে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের বিরুদ্ধে এই চিকিৎসা পদ্ধতি কতটা কার্যকর তা এখন জানা যায়নি। সূত্র: আল-জাজিরা, এনডিটিভি

স্বাআলো/এস