শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়ন করতে হবে

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো অবিবেচকের মত বিভিন্ন পরীক্ষার ফি সরকার বা বোর্ড নির্ধারিত ফির চেয়ে বেশি নিয়ে থাকে। এই অতিরিক্ত ফি বহনের ক্ষমতা শহরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের থাকলেও গ্রামের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের নেই।

এ কথা যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো জানে না তা নয়। তারা দরিদ্র অভিভাবকদের অতি কাছের মানুষ। এতদসত্বেও বাড়তি ফি নিতে তাদের বিবেকে একটুও বাধে না। প্রতিবারই শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা/জেলা শিক্ষা অফিস হুংকার ছাড়ে যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেশি ফি নেবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।কিন্তু এ যাবত দোষী কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানা যায়নি। অবস্থা এমন যে যখন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি তখন বুঝতে হবে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেশি ফি নেয়নি।কিন্তু বিষয়টা তার উল্টো।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের এ অর্থ লোলুপতার কারণে কত অভিভাবকের যে হিমশিম খেতে হয় তা দেখার ও বোঝার কেউ নেই। অনেকে সহায় সম্পদ বিক্রি করে অথবা উচ্চ সুদের ঋণ নিয়ে এই বর্ধিত ফি যোগাড় করে।

এমন যখন পরিস্থিতি তখন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, সরকার নির্ধারিত ফি’র থেকে অষ্টম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশনে অতিরিক্ত ফি নিলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। বুধবার (১১ মে) সকালে সাভারের আশুলিয়ায় ব্র্যাক সিডিএম সেন্টারে সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের (এসইডিপি) রিভিউ সংক্রান্ত কর্মশালার উদ্বোধন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

অষ্টম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশনে অতিরিক্ত ফি নেয়া হচ্ছে, এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সরকার নির্ধারিত যে ফি আছে সেই ফি এর বাইরে কেউ যদি অতিরিক্ত চার্জ করে, সুনির্দিষ্টভাবে আমাদের কাছে কেউ যদি অভিযোগ করেন তাহলে আমরা সেসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।

শিক্ষামন্ত্রী জাতিকে আশার বাণী শোনালেন। তার ঘোষণায় দরিদ্র অভিভাবকরা আশার আলো পেয়েছেন। এখন কথা হচ্ছে এ ঘোষণা বাস্তবায়ন করবে কে? যারা বাস্তাবায়ন করবে সেই শিক্ষাবোর্ড ও শিক্ষা অফিস তো এর আগে প্রতিবারই ব্যবস্থা গ্রহণের ঘোষণা দেয়। কিন্তু নিজেদের ঘোষণা নিজেরা ওভারলুক করে।শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা তো তারাই বাস্তবায়ন করবে। এ ক্ষেত্রে যথেষ্ঠ সংশয় রয়েছে।শিক্ষামন্ত্রীর প্রশংসনীয় ঘোষণাটি বাস্তবায়নে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিস্থিতির লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন বলে আমরা মনে করি।

স্বাআলো/এসএস

.