ট্রেনে ফের স্ট্যান্ডিং টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত, কার্যকর আগামী সপ্তাহ থেকে

করোনাভাইরাসের কারণে দুই বছর বন্ধ থাকার পর নতুন করে আন্তঃনগর ট্রেনে দাঁড়ানো (স্ট্যান্ডিং টিকিট) টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) রেল ভবনে এক বৈঠকে শোভন শ্রেণির এই টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে রেলের পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার গণমাধ্যমকে জানান।

শুক্রবার (১৩ মে) তিনি বলেন, অনেক দিন ধরে স্ট্যান্ডিং টিকিট বিক্রি বন্ধ রয়েছে। অথচ মানুষ দাঁড়িয়ে যাচ্ছেন। তাদের ঠেকানোও যাচ্ছে না। আবার তারা ভাড়াও দিচ্ছেন না। তারা টিকিট ছাড়াই উঠে যাচ্ছে। জরিমানা করতে গেলে বিশৃঙ্খলা তৈরি হচ্ছে। এ কারণে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তবে কবে থেকে, কত শতাংশ স্ট্যান্ডিং টিকিট দেয়া হবে, তা আগামী সপ্তাহে নির্ধারণ করা হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার মাসুদ সরোয়ার শুক্রবার (১৩ মে) বলেন, দাঁড়ানো টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকে কার্যকর করা হবে। ট্রেন ছাড়ার আধা ঘণ্টা আগ পর্যন্ত এই টিকিট পাওয়া যাবে।

২০২০ সালে করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে থাকায় ৬৭ দিন বন্ধ থাকে ট্রেন চলাচল। ওই সময় ৩১ মে থেকে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ট্রেন চলাচল করে। যা চলে ওই বছরের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত। এরপর সব আসনে যাত্রী চলাচল করলেও ২০২১ সাল এবং ২০২২ সালের বর্তমান পর্যন্ত দাঁড়ানো টিকিট বন্ধ থাকে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, এখন ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হলেও দাঁড়ানো টিকিট বন্ধ থাকায় কিছু অসাধু রেল কর্মকর্তার পকেট ভরছে। আবার জরুরি মুহূর্তে কেউ ট্রেনে যেতে পারছেন না। তাই দাঁড়ানো টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত অনেক ভালো সিদ্ধান্ত বলে মনে করছেন অনেকেই।

স্বাআলো/এসএ