খুলনায় সংঘর্ষ: বিএনপির ৮০০ নেতাকর্মীর নামে মামলা

খুলনায় পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ এনে বিএনপির স্থানীয় নেতাকর্মীসহ আরো অজ্ঞাতনামা ৮০০ নেতাকর্মীর নামে মামলা করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) রাতে পুলিশ বাদী হয়ে খুলনা সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদে মহানগরের কেডি ঘোষ রোডস্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে বিএনপির নেতাকর্মীর।

অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করছিলো বাংলাদেশ ছাত্রলীগ খুলনা জেলা শাখার নেতাকর্মীরা। তারা মিছিল নিয়ে ডাক বাংলোর মোড়ে আসলে বিএনপির নেতাকর্মীরা দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ইট-পাটকেলসহ খুলনা জেলা ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিলের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় বলে দাবি করছে পুলিশ।

খুলনায় ছাত্রলীগ-ছাত্রদলের সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

এ সময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা বিএনপির নেতাকর্মীদের নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায় বলেও দাবি করছে পুলিশ। পরে রাতে খুলনা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিশ্বজিৎ কুমার বোস বাদী হয়ে তাদের নামে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়লে খুলনা থানাধীন পিকচার প্যালেস মোড় থেকে বিএনপি অফিস পর্যন্ত এলাকায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলতে থাকে। ঘণ্টাব্যাপী চলা এই তাণ্ডব নিয়ন্ত্রণে আনতে ও তাদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার শেল নিক্ষেপ এবং শর্টগানের গুলিবর্ষণ করে পুলিশ।

তবে বিএনপির নেতাকর্মীরা বলছেন, খুলনায় বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশ ও ছাত্রলীগ-যুবলীগ ক্যাডাররা পূর্বপরিকল্পিতভাবে হামলা চালালে বিএনপির অন্তত অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন।

এছাড়া বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে বলেও জানান তারা।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
খুলনা ব্যুরো