শ্রীমঙ্গলে বাসা থেকে কাল নাগিনী সাপ উদ্ধার

কাল নাগিনী সাপ বাংলাদেশের সবচেয়ে পরিচিত একটি সাপ। এই সাপকে নিয়ে রয়েছে অনেক গল্প। বেহুলা লক্ষিন্দর পুরাণে মনসা দেবীর সন্তান হিসেবে কাল নাগিনীকে উপস্থাপন করা হয়েছে। এই সাপের দংশনে লক্ষিন্দরের মৃত্যুর কথা বলা হলেও প্রকৃতপক্ষে এটি নির্বিষ একটি সাপ। একসময় বাংলাদেশে সচরাচর দেখা গেলেও এটি এখন বিপন্ন প্রজাতির তালিকায়।

শুক্রবার (২৭ মে) সকাল ১০টায় শ্রীমঙ্গল শহরের কালীঘাট রোডের জুয়েল কানুর বাসায় কাল নাগিনী সাপ দেখে পরিবারের লোকজন বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেবকে খবর দিলে, সজল দেব বাসায় এসে সাপটিকে উদ্ধার করেন।

সজল দেব জানান, সাপটি উদ্ধার করে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে অবমুক্ত করা হবে।

তিনি আরো জানান, সিলেটের চা বাগানসহ মৌলভীবাজারের বিভিন্ন চা বাগানে সাপটির দেখা মিললেও বর্তমানে তেমন দেখা যায় না। তবে গভীর বনে এদের দেখা মিলে। এদের দৈর্ঘ্য ১০০ থেকে ১৭৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়। মাথা লম্বা ও চ্যাপ্টা এবং মুখের সামনের দিকে চৌকোনা আকৃতির। এদের দেহের রঙ পিঠের দিকে সবুজ। আবার হালকা সবুজ রঙের এবং কালচে ডোরাকাটা। ঘাড় থেকে লেজের ডগা পর্যন্ত মেরুদণ্ড-বরাবর কমলা রঙের এবং লাল দাগ দেখা যায়।

স্বাআলো/এস

.

Author
ঝলক দত্ত, মৌলভীবাজার