কালীগঞ্জে মহাসড়কে ডাকাতি, দুই সদস্য গ্রেফতার

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে সড়ক ডাকাতির সাথে জড়িত বিল্লাল হোসেন (৪৫) ও আলম হোসেন (৪৫) নামের দুই ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রবিবার (৩ জুলাই) দুপুরে থানা অভ্যন্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তাদের গ্রেফতারের কথা জানান ঝিনাইদহ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাশার। গ্রেফতার হওয়া বিল্লাল হোসেন ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার হাজামপাড়া গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দীন মোল্ল্যার ছেলে ও আলম হোসেন একই উপজেলার মৃত সোনা শেখের ছেলে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাশার জানান, গত ২১ জুন ভোর রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কের পিরোজপুর নামক স্থানে সড়কে গাছ ফেলে কয়েকটি গাড়িতে ডাকাতি হয়। সে সময়ে ডাকাত দল সিরাজুল ইসলাম (৪৪) নামে এক চালক সদস্যকে হাসুয়া দিয়ে জখমের পর ৪০ হাজার টাকা লুট করে। এ ঘটনায় ওই ট্রাকের মালিক তরুন সাহা কালীগঞ্জ থানাতে মামলা দায়ের করেন।

যশোরে অজ্ঞাত মহিলার গলিত মরদেহ উদ্ধার

মামলার পর কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার ও সোর্সের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে গত ১ জুলাই বিকেলে ডাকাত সদস্য শৈলকুপার হাজামপাড়ার বিল্লাল হোসেনকে গ্রেফতার করেন এবং আদালতে সে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে ডাকাতির কথা স্বীকার করেন। বিল্লালের স্বীকারোক্তিতে পরদিন একই উপজেলার সাতগাছী গ্রামের আলম হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাশার আরো জানান, গ্রেফতার হওয়া ওই দুইজনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় চারটি ডাকাতির মামলা রয়েছে। বাকি পলাতক অন্য ডাকাত সদস্যদের আটকে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা ২০১৮ সালে কুষ্টিয়া মহাসড়কের শেখপাড়াতে ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির গাড়িতে ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত বলেও স্বীকার করেছে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্ল্যা, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ওসি (তদন্ত) নজরুল ইসলাম, থানা পুলিশের অন্যান্য অফিসারবৃন্দ ও স্থানীয় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রকি মিডিয়ার সাংবাদিবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাআলো/এস

.

Author
জেলা প্রতিনিধি, কুড়িগ্রাম