চাঁদাবাজি: দুই সার্জেন্ট, এক এএসআইসহ ১০ পুলিশ ক্লোজ

চাঁদাবাজির অভিযোগে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগের দুই সার্জেন্ট এবং এক এএসআইসহ ১০ জনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। সম্প্রতি তাদের প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা কয়েছে বলে এক সূত্রের মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সূত্র জানায়, প্রত্যাহার হওয়া কর্মকর্তাদের মধ্যে শাহবাগ ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট জাফর ইমাম, ওয়ারী জোনের এক সার্জেন্ট ও এক এএসআইসহ মোট ১০ পুলিশ সদস্য রয়েছেন। আরো জানা যায়, এই ১০ পুলিশ সদস্য রাজধানীর শাহবাগ, টিকাটুলি ও স্বামীবাগ মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে চাঁদাবাজি করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

এদিকে দায়িত্বরত অবস্থায় ট্রাফিক পুলিশ যেনো কোনো অনৈতিক কর্মকাণ্ডে না জড়িয়ে পড়ে, সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। সোমবার (৪ জুন) এই চিঠি পাঠান তিনি।

ডিআইজি কার্যালয় থেকে মোটরসাইকেল চুরি, ১৪ পুলিশ বরখাস্ত

চিঠিতে বলা হয়, দায়িত্ব পালনকালে ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িত হওয়ার অভিযোগ এবং প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। যা ইউনিটের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করছে। ট্রাফিক বিভাগের যেসব সদস্যরা বিভিন্ন ইন্টারসেকশনে ডিউটিতে থাকেন, তারা যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করছেন কিনা তা নিয়মিত কঠোরভাবে তদারকি করতে হবে।

আরো বলা হয়, ভবিষ্যতে ট্রাফিক সদস্যের বিরুদ্ধে কোনো অনৈতিক ও দুর্নীতির সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট বিভাগের এডিসি, এসি, টিআইকে এর দায়-দায়িত্ব বহন করতে হবে। একইসঙ্গে তদারকিতে গাফিলতির বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বার্ষিক পারফরমেন্স রিপোর্টে (এসিআর) অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

স্বাআলো/এসএস