ডেকে নিয়ে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক গ্রেফতার

বারবিকিউ পার্টির নামে ডেকে শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ওই শিক্ষকের নাম কুমার অনিমেশ ভট্টাচার্য। ৪২ বছর বয়সী এই শিক্ষক রাজধানীর উত্তরায় অবস্থিত বেসরকারি শান্তা মারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক।

শ্লীলতাহানির শিকার শিক্ষার্থী একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাশন ডিজাইনিং ডিপার্টমেন্টে পড়েন। তার অভিযোগের প্রক্ষিতে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উত্তরা পশ্চিম থানার ১৩নং সেক্টর এলাকা থেকে অনিমেশকে গ্রেফতার করা হয়।

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ওই ছাত্রী তার শ্লীলতাহানির বিষয়ে আমাদের কাছে অভিযোগ করে জানিয়ে মামলা করেন। এরই ধারাবাহিকতায় আমরা সেই অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করেছি।

এ ঘটনায় নাহিদুল হক নামে আরো এক শিক্ষার্থী জড়িত আছেন জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা তাকেও গ্রেফতারের চেষ্টায় আছি।

মামলায় বলা হয়, গত ৬ জুলাই রাতে নাহিদুল হক নামের সহপাঠী নিজ বাসায় ওই ছাত্রীকে বারবিকিউ পার্টির আমন্ত্রণ জানান। পার্টিতে কে কে আছে জানতে চাইলে নাহিদ ওই ছাত্রীকে বলেন, কয়েকজন সহপাঠী ও শিক্ষক কুমার অনিমেষ ভট্টাচার্য আছেন।

ওই ছাত্রী তখন রাত হয়েছে বলে সেখানে যেতে অস্বীকৃতি জানান। পরে শিক্ষক কুমার অনিমেশ ভট্টাচার্যর সঙ্গে দেখা করে যাবার জন্য নাহিদের অনুরোধে সাড়া দিয়ে নিজের দুই ছোট ভাইকে নিয়ে উত্তরা ১৩নং সেক্টর এলাকায় আসেন ওই ছাত্রী।

সেই ছাত্রী তার দুই ছোট ভাইকে স্যারের সাথে দেখা করে চলে আসবো বলে নিচে অপেক্ষা করতে বলেন।

নাহিদের বাসায় যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শিক্ষক অনিমেষ দরজা বন্ধ করে দিয়ে তার শ্লীলতাহানি করেন বলে অভিযোগ করা হয় মামলায়। বলা হয়, সেই মেয়ে কোনো রকমে উদ্ধার হয়ে সেখান থেকে পালিয়ে আসেন।

চলে আসার পর শিক্ষক ও নাহিদ এ ঘটনা কাউকে না বলাতে ওই ছাত্রীকে টেলিফোনে হুমকি দেন এমন কথাও উল্লেখ আছে মামলায়।

বৃহস্পতিবার রাতে শিক্ষক ও সহপাঠীর নামে থানায় মামলা করেন ওই ছাত্রী।

স্বাআলো/এসএ