বাগেরহাটে দুই নারীর আত্মহত্যা

বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার সুন্দরবন ও চাদপাই ইউনিয়নে এক দিনের ব্যবধানে দুই নারী আত্মহত্যা করেছেন।

চাঁদপাই কানাইনগর গ্রামের আব্দুর রউফের মেয়ে কুলসুম আক্তার (১৯) শুক্রবার (১৫ জুলাই) সকালে পিতার বাড়িতে ঘরের আড়ার সাথে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে মোংলা থানা পুলিশ সকালে ওই বাড়িতে গিয়ে লাশের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কুলসুমের মাতা মেয়ের ঝুলন্ত লাশ দেখে চিৎকার দেয় এবং পুলিশে খবর দেয়। তবে পিতা-মাতা তাৎক্ষণিকভাবে আত্মহত্যার কারণ জানাতে পারেনি বলে পুলিশ জানায়।

অপরদিকে, এর আগের দিন বৃহস্পতিবার রাতে একই উপজেলার সুন্দরবন আগলাদিয়া গ্রামে স্বামীর নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে তাসলিমা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূ স্বামীর বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তাসলিমা একই গ্রামের আনোয়ার বেপারীর মেয়ে। তাসলিমার পিতা পরিবারের দাবি স্বামী পরিবার তাকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে প্রচার করেছে।

জানা গেছে একই গ্রামের মহিদুল শেখের সাথে ১১ বছর আগে তাসলিমার বিবাহ হয়। সম্প্রতি স্বামী স্ত্রীর মধ্যে তীব্র বিরোধ সৃষ্টি হয়। যা নিয়ে মোংলা থানায় একাধিক বার সালিশ বৈঠক হয়েছে।

পৃথকভাবে দুই নারীর আত্মহত্যা বিষয়ে মোংলা থানার ওসি মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার সকালে কানাইনগর গ্রামের কুলসুম নামের এক নারী গলায় রশি দিয়ে পিতার বাড়িতে আত্মহত্যার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছে। তদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর

এদিকে উপজেলার আগলাদিয়া গ্রামে বৃহস্পতিবার তাসলিমা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করলে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে। ২টি ঘটনায় কেউ সুর্নিদ্দিষ্টভাবে অভিযোগ করেনি। আত্মহত্যর ঘটনায় মোংলা থানায় পৃথক ২টি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
আজাদুল হক, বাগেরহাট
জেলা প্রতিনিধি