মাহিন্দা-বাসিলের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে এবং সাবেক অর্থমন্ত্রী বাসিল রাজাপাকসেকে ২৮ জুলাই পর্যন্ত বিনা অনুমতিতে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

শুক্রবার (১৫ জুলাই) প্রধান বিচারপতি জয়ন্ত জয়সুরিয়া এবং বিচারপতি বুওয়ানেকা আলুভিহারে, প্রিয়ন্ত জয়াবর্ধন, বিজিথ মালালগোদা এবং এলটিবি দেহিদেনিয়ার সমন্বয়ে গঠিত সুপ্রিম কোর্টের একটি বেঞ্চ এই আদেশ দিয়েছে।

এদিকে, শ্রীলঙ্কার দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল জানায়, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক দুই গভর্নরসহ আরো তিনজন সাবেক কর্মকর্তাও ২৮ জুলাই পর্যন্ত আদালতের অনুমতি ছাড়া দেশের বাইরে যেতে পারবেন না।

এর আগে ৭৩ বছর বয়সী প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহেকে ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথবাক্য পাঠ করান দেশটির প্রধান বিচারপতি জয়ন্ত জয়সুরিয়া।

শপথ নেয়ার পর টেলিভিশন ভাষণে রনিল বলেন, আমি কখনোই কোনো অসাংবিধানিক কাজের পথ প্রশস্ত করব না বা সহায়তা করবো না।

এ সময় আইনশৃঙ্খলার অবনতি দেশের অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলেও সতর্ক করেন তিনি।

তার আগে গণবিক্ষোভের মুখে দেশ থেকে পালিয়ে গিয়ে বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) রাতে ই-মেইলের মাধ্যমে দেশটির স্পিকারের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠান গোতাবায়া রাজাপাকসে।

সংবাদমাধ্যমের তথ্যমতে, কয়েকবারের চেষ্টার পর বুধবার (১৩ জুলাই) মধ্যরাতে সামরিক একটি বিমানে স্ত্রী ও দুই দেহরক্ষীকে নিয়ে মালদ্বীপে পালিয়ে যান গোতাবায়া। সেখান থেকে বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরে পৌঁছান তিনি। সিঙ্গাপুর সাধারণত রাজনৈতিক আশ্রয়ের নিয়ম না থাকায় সেখান থেকে তিনি কোথাও যাবেন কি না, তা এখনো অস্পষ্ট। তবে কিছু গণমাধ্যম বলছে, তিনি সৌদি আরব যাবেন। আবার কেউ বলছে, গোতাবায়া সংযুক্ত আরব আমিরাত যাবেন।

উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কায় স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকট দেখা দিয়েছে। বর্তমানে দেশটিতে বৈদেশিক মুদ্রার কোনো রিজার্ভ নেই। ফলে মানুষের জন্য খাবার, ওষুধ, জ্বালানির মতো অতি জরুরি আমদানিও করতে পারছে না দেশটিতে। দেশটির সংকট নিরসনে ব্যর্থতার অভিযোগে সরকারের বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রতিবাদ চলছে।

স্বাআলো/এস

.

Author
আন্তর্জাতিক ডেস্ক