বর-কনে অপ্রাপ্তবয়স্ক, কাজীসহ তিনজনের কারাদণ্ড

বাগেরহাট শহরের নাগেরবাজার এলাকায় দুটি বাল্যবিয়ে পড়ানোর অপরাধে কাজী আতাউল বারী ও বর-কনের বাবাকে ছয় মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুক্রবার (১৫ জুলাই) রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত দুই অভিভাবক হলেন- সদর উপজেলার বেমতা ইউনিয়নের ফতেপুর গ্রামের কনের বাবা কবির সর্দার (৪৫) ও বরের বাবা বাগেরহাট শহরের গোবরদিয়া এলাকার সজীব হালদার (৪০)। কাজীসহ ওই দুই অভিভাবককে রাতেই বাগেরহাট কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার রাতে বাগেরহাট শহরের নাগেরবাজার কাজী অফিসে বাল্যবিয়ে সম্পন্ন হচ্ছে এমন খবরের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

কাজী অফিসে গিয়ে দেখা যায়, বাগেরহাট সদর উপজেলার ফতেপুর গ্রামের কবির সর্দার তার স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে একজন প্রাপ্তবয়স্ক যুবকের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছেন। অপরদিকে শহরের গোবরদিয়া এলাকার সজীব হালদার তার অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেকে একটি প্রাপ্তবয়স্কা মেয়ের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছেন। পৃথক দুটি বাল্যবিয়ে পড়ানোর অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বিবাহ রেজিস্টার কাজী আতাউল বারীসহ দুই অভিভাবককে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর আওতায় ৬ মাস করে বিনাশ্রম করাদণ্ড দেওয়া হয়। তাদের রাতেই কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

স্বাআলো/এস

.

Author
আজাদুল হক, বাগেরহাট
জেলা প্রতিনিধি