কুষ্টিয়ায় প্রেম সংক্রান্ত জেরে কলেজছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে নয়ন কুমার সরকার (২২) নামের এক কলেজছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ রবিবার (১৭ জুলাই) সকালে উপজেলার নন্দনালপুর ইউনিয়নের সোন্দাহ গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি ইউনিয়নের নন্দনালপুর গ্রামের যগরেশ কুমার সরকারের ছেলে ও আলাউদ্দিন আহমেদ ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

স্বজদের দাবি, প্রেম সংক্রান্ত জেরে নয়নকে ডেকে নিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

তার সারা শরীরে রক্তাক্ত আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, শনিবার মধ্যরাত থেকে নিখোঁজ ছিলো কলেজছাত্র নয়ন কুমার সরকার। পরিবারের সদস্যরা সারারাত খোঁজাখুজি করেও কোথাও পায়নি তাকে। এরপর ভোররাতে মোবাইলে খবর আসে নন্দনালপুর ইউনিয়নের সোন্দাহ নতুনপাড়া মাঠের মধ্যে সড়কের পাশে নয়ন রক্তাক্ত জখম অবস্থায় পড়ে আছে। খবর পেয়ে স্বজনা দ্রুত ছুটে যায় এবং আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে দুপুরে ঢাকা যাওয়ার পথে তার মৃত্য হয়।

নিহতের বাবা যগেশ কুমার সরকার বলেন, স্থানীয় এক মুসলিম মেয়ের সাথে নয়নের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। এনিয়ে পারিবারিকভাবে নয়নকে শাসন করেছিলাম। হয়তো ওই মেয়ের পরিবারের সদস্যরাই ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আমি উপযুক্ত বিচার চাই।

নিহতের বোন লতা রাণী বলেন, ওরা আমার ভাইকে ডেকে নিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আমি হত্যার বিচার চাই।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আশরাফুল আলম বলেন, গুরুতর অবস্থায় ভোর ৬টার দিকে নয়নকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় ভর্তির কিছুক্ষণ পরেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রিফার্ড করা হয়।

কুমারখালী থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, বিষয়টি অবহিত হয়েছি। মরদেহ মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্ত শেষে সব জানা যাবে।

স্বাআলো/এস

.

Author
জেলা প্রতিনিধি, কুষ্টিয়া