মাগুরায় পুলিশের নির্যাতনে শ্রমিকের মৃত্যুর অভিযোগ, এসআই ক্লোজ

মাগুরায় শ্রীপুর উপজেলার নাকোল ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে আবদুস সালাম (৪৫) নামে ওয়াপদা টিকেট কাউন্টারের এক কর্মচারির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। নিহত আবদুস সালাম জেলার শ্রীপুর উপজেলার রায়নগর গ্রামের আছির উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুল হাসানকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনের পাশাপাশি অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে ক্লোজ করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, শনিবার (১৬ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে শ্রীপুর উপজেলার চৌগাছি গ্রামের রাশেদ নামে এক ব্যক্তি ঢাকায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ওয়াপদা বাসস্ট্যাণ্ডে যায়। এ সময় কে.লাইন টিকেট কাউন্টারে কর্মচারি আবদুস সালামের সাথে ওই যাত্রীর কথা কাটাকাটি হয়। তাদের কাছ থেকে টিকেট ক্রয় না করায় আবদুস সালাম ও মামুন নামে কয়েকজনে রাশেদ নামের ওই যাত্রিকে মারধর করে। এ ঘটনার পর হয়রানির শিকার ওই যাত্রী পুলিশের ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে সহায়তা চাইলে নাকোল ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জামাল ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাউন্টারের কর্মচারি আবদুস সালামকে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর সেখানে সে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হলে পথেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনার পর নিহতের স্বজন এবং ওয়াপদা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কর্মকর্তরা ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই জামালের বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ তুলে প্রায় এক ঘণ্টা মাগুরা-ফরিদপুর সড়ক অবরোধ করে।

স্থানীয় নাকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়নুর রশিদ মুহিদ বলেন, ফাঁড়ি ইনচার্জ জামাল এখানে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই এলাকার সাধারণ মানুষকে হয়রানি করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় সালাম নামে ওই ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে তিনি বুকে পিঠে লাথিসহ নানাভাবে নির্যাতন চালিয়েছে। যার প্রেক্ষিতেই এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

এ বিষয়ে মাগুরা পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে ক্লোজ করে বিষয়টি তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দিলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
লিটন ঘোষ জয়, মাগুরা
জেলা প্রতিনিধি