বিদ্যালয়ে দেরিতে আসায় প্রধান শিক্ষককে অবরুদ্ধ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বিদ্যালয়ে দেরিতে আসায় প্রধান শিক্ষক শামসুন্নাহার ছবিকে অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয় লোকজন ও শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। এ সময় ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও প্রধান শিক্ষকের অনিয়মের প্রতিবাদ করেছে।

সোমবার (১৮ জুলাই) দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলার পশ্চিম সারডুবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই ঘটনাটি ঘটেছে। এ সময় প্রায় ২ ঘণ্টা ধরে প্রধান শিক্ষক ছবিকে অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা।

শামসুন্নাহার ছবি পশ্চিম সারডুবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

জানা গেছে, শামসুন্নাহার ছবি এই বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর থেকে নিজের ইচ্ছামত বিদ্যালয় পরিচালনা করছে। কয়েক মাস আগে ওই বিদ্যালয় থেকে সরকারি বিস্কুট চুরি করে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা প্রধান শিক্ষক ছবিকে আটক করে। এর আগে স্কাউট ফি দিতে না পারায় কয়েকজন শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা দিতে বাঁধা দেয় ওই শিক্ষক। প্রধান শিক্ষকের এ রকম নানা অনিয়মের অভিযোগে সোমবার স্থানীয়রা ও অভিভাবকরা তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে খবর পয়ে ওই বিদ্যালয়ে আসেন উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (এটিও) বেলাল হোসেন। অনিয়মের বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে অভিবাবকদের আশ্বাস দিলে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা বাড়ি ফিরে যায়।

স্থানীয় অভিভাবকরা বলেন, প্রধান শিক্ষক ছবি বিদ্যালয়ের বিস্কুট, ফ্যান বাড়িতে নিয়ে গেছে। সে সময়মত বিদ্যালয় আসে না। তার ইচ্ছা খেয়ালমত বিদ্যালয় চালায়। কেউ এর প্রতিবাদ করলে তাকে নানা ধরনের হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে পশ্চিম সারডুবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুন্নাহার ছবি বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (এটিও) বেলাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ওই বিদ্যালয়ে যাই। সবার সাথে কথা বলেছি ও শুনেছি। উর্দ্ধতন কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
জেলা প্রতিনিধি, লালমনিরহাট