ভূমি ও গৃহহীন মুক্ত হচ্ছে মাগুরা জেলা, বৃহস্পতিবার ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী

ভূমিহীন ও গৃহহীন হাজেরা, জব্বার মোল্লা, রফিক কাজী, মিরাজ , তাহমীনা, ছালিমা, শের আলী জানান, জমিসহ ঘর পেয়ে তারা মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়েছেন। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পূর্বে তারা অন্যের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। এখন নিজের বাড়ি পেয়েছেন। তারা বাড়ির অঙিনায় সবজি চাষ করেছেন। সেই সবজি দিয়ে খাওয়ার কাজ চলছে। এভাবে আশ্রয়ণ প্রকল্পে মোট ৬৭৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসিত করার মাধ্যমে মাগুরা জেলা ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত হতে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চলতি জুলাই মাসের (বৃহস্পতিবার) ২১ জুলাই সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন।

জানা গেছে, শালিখা উপজেলার আড়পাড়া ইউনিয়নে গোপাল গ্রাম, দীঘি, কৃষ্ণপুর এবং শতখালি ইউনিয়নের ফকিরের বাছড়া, তালখড়ি ইউনিয়নের উজগ্রাম, সাবলাট, গঙ্গারামপুর ইউনিয়নের সোনাকুর ও শালিখা ইউনিয়নের শুরুশুনায় ১ম, ২য় ও ৩য় পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে ২২৪টি ঘর প্রদান করা হয়। মহাম্মদপুরের চর জাঙ্গালিয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পে, সদর উপজেলার আশ্রয়ণ প্রকল্পসহ মাগুরা জেলার ৬৭৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার তাদের আবাসস্থল লাভের সুবিধা পাচ্ছে।

মাগুরা জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম বলেন, আগামী ২১ জুলাই সকাল ১০টায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দুটি জেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করবেন। এর একটি মাগুরা, অন্যটি পঞ্চগড়। আমরা ৪৮টি স্পটে ৬৭৮টি ঘর ২ শতক জমিসহ প্রদান করা হয়েছে। এজন্য খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে। সমাজের সবাই আমাদের এই কাজের সঙ্গে সহযোগিতা করেছেন।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
লিটন ঘোষ জয়, মাগুরা
জেলা প্রতিনিধি