পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভুট্টোর সাথে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের ৪০ মিনিট

আসিয়ান সম্মেলনে যোগ দিতে কম্বোডিয়ার নমপেনে যাওয়ার পথে চট্টগ্রামে থামলেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি।

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বিলাওয়াল ভুট্টোকে বহনকারী ফ্লাইটটি শাহ আমানত বিমানবন্দরে বুধবার (৩ আগস্ট) যাত্রাবিরতি করে। সে সুবাদে তিনি চট্টগ্রামে ৪০ মিনিট অবস্থান করেন। দীর্ঘদিনের বিরতির পর পাকিস্তানি কোনো মন্ত্রীর এটাই প্রথম বাংলাদেশের মাটিতে নামা।

ঢাকায় পাকিস্তান হাইকমিশনের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। ওই খবরের সঙ্গে দুই মন্ত্রীর সাক্ষাৎ ও আলাপচারিতার একাধিক হাস্যোজ্জ্বল ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।

হাইকমিশন জানায়, পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো আসিয়ান আঞ্চলিক ফোরামের (এআরএফ) ২৯তম মন্ত্রিপর্যায়ের বৈঠকে যোগ দিতে কম্বোডিয়া যাওয়ার পথে বাংলাদেশে যাত্রাবিরতি করেন। ৪ থেকে ৬ আগস্ট নমপেনে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সৌজন্যমূলক এই বৈঠকে দুই মন্ত্রী একে অন্যকে বই উপহার দেন। পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রায় ৪০ মিনিট বিমানবন্দরে অবস্থান করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী চট্টগ্রামে তার ট্রানজিটের সময় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এবং বাংলাদেশের জনগণের প্রতি তার অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।

বিলাওয়াল বলেন, বাংলাদেশের ওপর দিয়ে উড়ে যাওয়ার সময় আমি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আবদুল মোমেনের সুস্বাস্থ্য ও সুখ এবং বাংলাদেশের ভ্রাতৃপ্রতিম জনগণের ক্রমবর্ধমান অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির জন্য আমার ব্যক্তিগত শুভেচ্ছা জানাই।

সদ্য শেষ হওয়া আট মুসলিম দেশের অর্থনৈতিক জোট ‘ডি-এইট’-এর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে যোগ দিতে ঢাকা সফরে আসার কথা ছিলো পাকিস্তানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিনা রাব্বানি খারের।

কিন্তু শেষ সময়ে এসে ঢাকা সফর বাতিল করেন তিনি।

কূটনৈতিক সূত্র জানায়, ডি-এইট পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলনে অংশ নিতে ইসলামাবাদ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিনা রব্বানি খারকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে তার সফর বাতিল করে তারা। শুধু তাই নয়, প্রতিনিধি হিসেবে দেশটির পররাষ্ট্র সচিবকেও ঢাকায় পাঠায়নি ইসলামাবাদ। তবে ডি-এইট মন্ত্রীপর্যায়ের বৈঠকে আংশিকভাবে ভার্চুয়ালি যোগ দেন হিনা।

শেষ মুহূর্তে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর ঢাকা সফর বাতিলের কারণ স্পষ্ট না হলেও কূটনৈতিকরা বলছেন, কয়েক দিন আগে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার সঙ্গে পাকিস্তানের পতাকাজুড়ে দিয়ে ঢাকার পাকিস্তান হাইকমিশন ফেসবুকে যে ছবি প্রকাশ করেছিল, সে বিষয়ে ঢাকার প্রতিক্রিয়ায় বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয় তাদের। যেটা হয়তো ভালোভাবে নিতে পারেনি ইসলামাবাদ।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
চট্টগ্রাম ব্যুরো