মাগুরায় ৩ হাজার ছাত্র-ছাত্রীকে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ

বর্তমানে দেশের মোট বাজেটের এক তৃতীয়াংশ অর্থই সাইবার অপরাধ বা কম্পিউটার হ্যাকিং অপরাধের ঝুকির মধ্যে রয়েছে। ক্রমাগত ডিজিটাল সম্প্রসারণের ফলে কম্পিউটারের নেটওয়ার্কের উপর প্রতিনিয়ত নির্ভরতা বাড়ার ফলে ছাত্র-ছাত্রীরা অনেকাংশেই এ হুমকির সম্মুখীন। সে ক্ষেত্রে সাইবার অপরাধ বা কম্পিউটার নেটওয়ার্কের সাথে সম্পর্কিত প্রতিটি অপরাধ বিষয়ে সাধারণ জনগণকে সচেতন করে তুলতে আধুনিক টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক, যেমন ইন্টারনেট এবং মোবাইল ফোন ব্যবহার করে এসব অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড বিষয়ে মাগুরায় ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকমণ্ডলীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।

দক্ষ যুব আইসিটি উন্নয়ন সংস্থা ও ব্যাকডোর নামে একটি সাইবার নিরাপত্তা সংস্থা এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে মাগুরা জেলার ছয়টি স্কুলের অন্তত তিন হাজার ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষককে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দিয়েছে সংস্থাটি। বিভিন্ন স্কুল কলেজ ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের মাধ্যমে এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। এ কর্মসূচীতে প্রধান প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ব্যাকডোরের চেয়ারম্যান ও সাইবার বিশেষজ্ঞ সহকারি অধ্যাপক তানভীর হাসান জোহা।

দক্ষ যুব আইসিটি উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি লোটন শীলের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের উপদেষ্টা তরুন ভৌমিক, পুষ্পেন্দু ভট্টাচার্য, সুমন বিশ্বাস, জুয়েল সিকদারসহ অন্যরা।

কর্মশালায় বিভিন্ন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালের বরাত দিয়ে জানানো হয়, সাইবার অপরাধে অনলাইন ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড জালিয়াতিসহ নানা ধরনের জালিয়াতির ফলে ২০১২ সালে শুধুমাত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অন্তত দেড় বিলিয়ন মার্কিন ডলার তছরুপ হয়ে গেছে। বিশ্ব অর্থনীতিতে যার বার্ষিক ক্ষতি ৪শ ৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বাংলাদেশে ব্যাংক থেকে রিজার্ভ তছরুপ থেকে শুরু করে বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশের হাজার হাজার সাইবার অপরাধের তথ্য ইদানিং জানা যাচ্ছে। বিশেষ করে স্কুল কলেজের ছেলে-মেয়েদের বিকাশ, রকেটসহ বিভিন্ন ডিজিটাল মাধ্যমে বৃত্তি, উপবৃত্তিসহ সরকারি বেসরকারি সহায়তার টাকা হ্যাকার বা প্রতারক শ্রেণির দ্বারা তছরুপের ঘটনা ঘটছে।

অসচেতনভাবে নিজের পাসওয়ার্ডের ব্যবহার ও প্রতারকদের প্রলোভনে পড়ে অনেকেই ব্ল্যাক মেইলিংয়ের শিকার হচ্ছে। এর ফেলে তাদের স্বাভাকি জীবন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এছাড়া অনেকের পরিবারের সদস্যরাও এ ধরনের প্রতারণা শিকার হচ্ছে। কর্মশালায় আরো জানানো হয়, সাইবার সিকিউরিটি বর্তমান সময়ের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া, ব্যক্তিগত ও বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি কোম্পানির ওয়েবসাইট গুলোর সাইবার নিরাপত্তার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

বর্তমান সরকারের রূপকল্প ২০২১ ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ তথা ঝুঁকিহীন সাইবার নিরাপদ পরিবেশ গড়ে তোলার লক্ষে স্কুল শিক্ষার্থীদের মধ্যে সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা, দক্ষতা ও প্রযুক্তি জ্ঞান বৃদ্ধিকরণ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

মাগুরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র অয়ন ইসলাম, শান্তনু ভৌমিক, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী মৃধা ফরিহা সিদ্দিকী চৈতী, সুমাইয়া জাহান মুনসহ একাধিক ছাত্রছাত্রী তাদের বিকাশ একাউন্ট হ্যাক, মোবাইলের মাধ্যমে হুমকি ধমকিসহ বিভিন্ন অভিজ্ঞতা তুলে ধরে জানায়, এ কর্মশালার মাধ্যমে তারা সাইবার অপরাধ ও তা প্রতিরোধে করণীয় জানতে পেরে এ ধরনের প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন।

স্বাআলো/এস

.

Author
লিটন ঘোষ জয়, মাগুরা
জেলা প্রতিনিধি