যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম, স্বামী গ্রেফতার

রংপুরে যৌতুকের দাবিতে কলেজ শিক্ষার্থী স্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যাওয়া স্বামীকে গ্রেফতার করেছে রংপুর র‌্যাব-১৩।

গ্রেফতারকৃত ফেরদৌস জামাল ডিপজল (২৪) মিঠাপুকর উপজেলার বিরাহিমপুর গ্রামের মুসলিম মিয়ার ছেলে।

রবিবার (১৪ আগস্ট) দুপুরে র‌্যাব-১৩ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক ফ্লাইট লেঃ মাহমুদ বশির আহমেদ গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, রবিবার সকালে রংপুর নগরীর প্রধান ডাকঘর এলাকা থেকে পলাতক ফেরদৌস জামাল ডিপজলকে (২৪) গ্রেফতার করা হয়। এর আগে গত ১০ আগস্ট মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দ বেগম রোকেয়া স্মৃতি সরকারী কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী স্ত্রীকে মাথায় হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায় ডিপজল।

র‌্যাব জানায়, গ্রেফতারের পরে ডিপজল জিজ্ঞাসাবাদে জানায় অন্যান্য দিনের মতো কলেজ শেষে গত বুধবার দুপুরের দিকে বাবার বাড়ি ফিরছিলেন তার স্ত্রী। ভাংনী চৌপথির দক্ষিণ পাশে ছোট কালভার্ট পার হওয়ার সময় স্ত্রীর পথ রোধ করে তার সাথে থাকা একটি হাতুড়ি বের করে মাথায় উপর্যপুরি আঘাত করে। এতে তার স্ত্রী মাটিতে লুটিয়ে পড়ে এবং সে ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায় এবং সেখানে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজে স্থানান্তর করা হয়।

এব্যাপারে র‌্যাবকে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর বাবা ও আত্মীয় স্বজনরা জানান, এক বছর আগে জোর করে বিয়ে করে ফেরদৌস জামাল ডিপজল। বিয়ের পর থেকেই তার ওপর শুরু হয় নির্যাতন যা সহ্য করতে না পেরে কয়েক মাসের মধ্যেই স্ত্রী তার বাবার বাড়ি চলে যায় এবং নতুন জীবন শুরু করতে আবারো পড়ালেখা শুরু করে। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে তার স্বামী এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি তার পরিবারের সদস্যদের।

এব্যাপারে ভুক্তভোগীর পিতা বাদী হয়ে ফেরদৌস জামাল ডিপজলসহ আরো তিনজন এবং অজ্ঞাতনামা ২-৩ জনের নামে মিঠাপুকুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
হারুন উর রশিদ সোহেল, রংপুর
ব্যুরো প্রধান