খরচ সামাল দিতে যুক্তরাজ্যে সপ্তাহে ৩ দিন স্কুল বন্ধের চিন্তা

খরচ কমাতে যুক্তরাজ্যের স্কুল গুলোতে সপ্তাহে তিনদিন ক্লাস নেয়ার চিন্তা করছে কর্তৃপক্ষ। কারণ দেশটিতে বিদ্যুতের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে।

গ্যাসের সংকট ও নদীতে পানির স্তর কমে যাওয়ায় ইউরোপে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যহত হচ্ছে। এরই মধ্যে সংকটে পড়েছে অনেক দেশ। যুক্তরাজ্যেও অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে বিদ্যুতের দাম।

সেপ্টেম্বর থেকেই যুক্তরাজ্যের স্কুলশিক্ষকদের বেতন বাড়ছে, একই সঙ্গে আশঙ্কা করা হচ্ছে বিদ্যুৎ বিল এরই মধ্যে ৩০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে। ফলে স্কুলের খরচ সামাল দেয়া নিয়েও তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।

ক্রিয়েটিভ ট্রাস্টের প্রধান নির্বাহী মার্ক জর্ডান বলেছেন যে বিদ্যুৎ বিলের খরচ কমাতে স্কুলে সপ্তাহে তিনদিন ক্লাসের বিষয়ে আলোচনা করতে তিনি শুনেছেন।

জর্ডানের ক্রিয়েটিভ এডুকেশন ট্রাস্ট যুক্তরাজ্যের পূর্ব ও পশ্চিম মিডল্যান্ডস ও নরফোকের ১৭টি স্কুল পরিচালনা করে যেখানে পড়াশোনা করছে ১৩ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থী।

তিনি নিজের ট্রাস্ট সম্পর্কে বলেছেন, এরই মধ্যে তারা খরচ কমাতে একটি শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত করছে এবং স্কুল ভবনগুলোর একটি পরিকল্পিত প্রকল্প বাতিলে বাধ্য হতে পারে।

সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাজ্যের স্কুলগুলো পর্যাপ্ত বিনিয়োগ পাচ্ছে না। ফলে অনেক শিক্ষকও খরচ কমাতে সাপ্তাহিক স্কুলের দিনের সংখ্যা কমিয়ে আনার পক্ষপাতি।

এসেক্সের সাউথেন্ড হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষ ড. রবিন বেভান বলেছেন, যদি এরই মধ্যে চারদিন স্কুল খোলা রাখার পরিকল্পনা না করা হয়, তবে অবশ্যই তা বিবেচনা করা হবে।

শুধু স্কুলই নয়, যুক্তরাজ্যে সামনের শীতে জানুয়ারিতে শিল্প-কারখানা ও সাধারণ পরিবারগুলোর জন্যও সাময়িকভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়া হতে পারে।

দেশটির কর্তৃপক্ষ বলছে, সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির বিষয় মাথায় রেখে সরকারি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু করার পরও সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ ব্যবহারের ছয় ভাগের এক ভাগ ঘাটতি থাকবে।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
আন্তর্জাতিক ডেস্ক