ঝিনাইদহ কারাগারে আটক সেই অজ্ঞাত ব্যক্তির পরিচয় মিলেছে

ঝিনাইদহ কারাগারে আটক সেই অজ্ঞাত ব্যক্তির পরিচয় মিলেছে। তার নাম মৃনাল রায়। বাড়ি নীলফামারী সদর উপজেলার ১নং চওড়া বড়গাছী ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ চওড়া গ্রামে। তিনি এ গ্রামের যতীন্দ্র নাথ রায়ের ছেলে।

গত ৩১ জুলাই জেলখানায় বন্দী ঐ প্রতিবন্ধীর পরিচয় শনাক্ত করতে আদেশ দেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈজয়ন্ত বিশ্বাস।

এরপর বিভিন্ন গণমাধ্যমে মামলা নেই, নেই আদালতের সাজাও তবুও ৩ বছর জেলহাজতে প্রতিবন্ধী শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর অজ্ঞাত ঐ ব্যক্তির সন্ধান পায় স্বজনরা।

মৃনাল রায়ের মামা চিনেন্দ্র নাথ রায় বলেন, তার ভাগ্নে গত ৭/৮ বছর যাবৎ নিখোঁজ রয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সন্ধান করেও তাকে পাওয়া যায়নি। শিগগিরই তাকে ঝিনাইদহে নিতে আসবেন বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, মৃনাল রায় ও ভবেশ চন্দ্র রায় এরা দুই ভাই। তাদের বাবা অসুস্থ অবস্থায় শয্যাশায়ী। অনেকদিন হলো মা মারা গেছে। মৃনাল রায় মানসিক প্রতিবন্ধী। সে কথা বলতে পারে না।

জানা গেছে, ঝিনাইদহ থানার এস.আই মোহাম্মদ ইউসুফ শেখ ২০১৯ সালের ১৪ নভেম্বর লোকটিকে ঝিনাইদহ সদরের নগরবাথান এলাকার স্থানীয় লোকজনের হেফাজত থেকে উদ্ধার করে সেফ কাস্টডির জন্য আদালতে প্রেরন করে।

ঝিনাইদহের অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈজয়ন্ত বিশ্বাস আদেশে উল্লেখ করেন যে, নাম-ঠিকানাবিহীন অজ্ঞাত পুরুষটি একজন বুদ্ধি ও বাক প্রতিবন্ধী। বিনা বিচারে কাউকে জেল হাজতে আটক রাখা ন্যায় বিচার ও মানবাধিকার সংক্রান্ত নীতিমালার পরিপন্থী। অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে অবিলম্বে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে দিতে তার নাম-ঠিকানা উদঘাটন করা প্রয়োজন।

একারণে অজ্ঞাত ব্যক্তিকে ঝিনাইদহ নির্বাচন অফিসে নিয়ে আঙ্গুলের ছাপ ম্যাচিং পূর্বক আদেশ প্রাপ্তির ৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়। এছাড়াও লোকটি রোহিঙ্গা কিনা তা যাচাই-বাছাই করে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে সংশ্লিষ্ট এপিবিএন (আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন) সমূহের পুলিশ সুপার ও অফিসার-ইন-চার্জদেরকে নির্দেশ প্রদান করা হয়। গত ৩রা আগস্ট ঝিনাইদহ জেলা নির্বাচন অফিসার আদালতকে অবগত করেন যে অজ্ঞাত ব্যক্তির কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈজয়ন্ত বিশ্বাস তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন যে, এতো দ্রুত সাফল্যের দেখা পাবো ভাবিনি! গত ৩১/৭/২০২২ খ্রিঃ তারিখে ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে আটক অজ্ঞাতনামা এই লোকটির নাম-ঠিকানা উদ্ধারের জন্য আদেশ প্রদান করি। বিষয়টি ব্যাপকভাবে মিডিয়া কাভারেজ পায় এবং সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়। সেই সূত্রে রবিবার দুপুরে জানতে পারি এই লোকটির নাম সম্ভবত মৃণাল রায়। তার বাড়ি নীলফামারী সদর উপজেলার দক্ষিণ চাওড়া গ্রামে। অসহায় লোকটিকে তার বাড়ির ঠিকানার সন্ধান দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।

স্বাআলো/এস

.

Author
জেলা প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ