দুই হাত না থাকায়, পা দিয়ে লিখে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে মানিক

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে পা দিয়ে লিখে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে মানিক রহমান (১৬)। সে উপজেলার ফুলবাড়ী জছি মিঞা মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র।

মানিক উপজেলার চন্দ্রখানা গ্রামের মিজানুর রহমান-মরিয়ম দম্পতি ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, অদম্য মেধাবী শারীরিক প্রতিবন্ধী মানিক রহমানের দুই হাত না থাকায় ছোটবেলা থেকে পা দিয়ে লিখে আসছে। সে পা দিয়ে লিখেই জেএসসি পরীক্ষায়ও জিপিএ-৫ পেয়েছে। এবারো একইভাবে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে সে।

মানিকের মা মরিয়ম বেগম বলেন, ছেলে জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী। লেখাপড়ায় তার খুব আগ্রহ। আমরা সব ধরনের সহযোগিতা করছি তাকে। তার স্বপ্ন লেখাপড়া শেষ করে সে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হবে।

তার বাবা মিজানুর রহমান বলেন, দুই ছেলের মধ্যে মানিক বড়। জন্মের পর থেকেই সে শারীরিক প্রতিবন্ধী। ছোট থেকেই তাকে পা দিয়ে লেখার অভ্যাস তৈরি করি। রেজাল্ট ভালো করলে নিজেকে গর্ববোধ মনে করি।

ফুলবাড়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের সুপার মশিউর রহমান বলেন, মানিক রহমান ছাত্র হিসেবে খুবই ভালো। সে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে। ভালোভাবেই সে পরীক্ষা দিচ্ছে। তার পায়ের লেখা দেখে কারো বোঝার উপায় নেই যে সে প্রতিবন্ধী।

এবার জেলার ৯ উপজেলায় ৫৭ কেন্দ্রে ২৭ হাজার ১৫১ জন পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এর মধ্যে মাধ্যমিকে ৩৪ কেন্দ্রে ১৮ হাজার ৮৩৯ জন, ভোকেশনালে ১১ কেন্দ্রে দুই হাজার ৭৫৭ জন ও মাদরাসায় ১২ কেন্দ্রে ৫ হাজার ৫৫৫ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।

স্বাআলো/এস

.

Author
জেলা প্রতিনিধি, কুড়িগ্রাম