করোনা ঠেকাতে ৫ দফা নির্দেশনা অনুসরণ করতে হবে

সারাদেশে আবারো করোনাভাইরাসে আক্রান্তর সংখ্যা বাড়ছে। তাই সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সকল ক্ষেত্রে শতভাগ সঠিকভাবে মাস্ক পরা, বেসরকারি পর্যায়ে করোনা পরীক্ষার খরচ কমানোসহ ৫ দফা সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

১৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে পরামর্শক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সেই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হযয়ছে, গত কয়েকদিন ধরে মহামারি করোনাভাইরাসে সারাদেশে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা আবারো বেড়েছে। এ নিয়ে আলোচনার পর পাঁচ দফা সুপারিশ করেন কারিগরি কমিটির সদস্যরা। সকল ক্ষেত্রে শতভাগ সঠিকভাবে মাস্ক পরা ও হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের জন্য জনসাধারণকে উৎসাহিত করা।

প্রথম, দ্বিতীয় এবং বুস্টার ডোজের কোভিড ভ্যাকসিন টিকা যারা নেননি, তাদের টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা।

বদ্ধস্থানে সভা করা থেকে বিরত থাকা ও দাফতরিক সভাগুলো যথাসম্ভব ভার্চুয়ালি সম্পন্ন করা। অপরিহার্য সামাজিক অনুষ্ঠান বা সভাগুলোতে মাস্ক পরার সুপারিশ। বেসরকারি পর্যায়ে কোভিড-১৯ পরীক্ষার ব্যয় কমানোর পদক্ষেপে সরকারকে উদ্যোগ নেয়ার আহবান জানানো হয়।

প্রচলিত কথায় আছে ‘সোজা আঙুলে ঘি ওঠে না’। জাতি হিসেবে আমাদের চরিত্রটাই যেন তেমন। নিজের ভালো পাগলে বুঝলেও এ জাতি বুঝতে চায় না। দেশ জুড়ে করোনা নতুন করে কাপন সৃষ্টি করেছে। এ অবস্থায় যখন কেউ করোনা প্রতিরোধ বিধি-নিষেধ মানছে না তখন স্বাস্থ্য অধিদফতর মাস্ক ব্যবহারসহ কিছু নিয়ম-কানন পলনের নির্দেশনা দিয়েছে। আমরা এ নির্দেশনাকে স্বাগত জানাই।

করেনাভাইরাস যে মহামারী তাতে আর কোনো সন্দেহ নেই কারো। এর ভয়াবহতা নতুন করে ব্যাখ্যা করারও প্রয়োজন নেই। দীর্ঘ সময় ধরে সারা বিশ্ব চষে বেড়াচ্ছে এই ভাইরাস। হালে আগ্রাসন কিছুটা কম হলেও নতুন করে উঁকি দিচ্ছে। তাই বিশেষজ্ঞরা আগেভাগে সতর্ক করছেন।

আশার কথা হলো আমাদের দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যু হার কমেছে। তাই বলে অসতর্ক থাকা যাবে না। কেননা যখন একটি দুর্যোগ জাতির ঘাড়ে চাপে তখন সেটি দিনক্ষণ দিয়ে চাপে না। যদি প্রতিরোধে করণীয় বিষয়গুলো পালন করা যায় তাহলে দুর্যোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।

যদি সবাই নির্দেশনা অনুসরণ করে তাহলে অটোমেটেকলি এটা থেকে রিলিফ পাওয়া যাবে। ওমিক্রন প্রতিরোধের করণীয় বিষয়ে সর্বপ্রথম গণসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে এবং তাদেরকে করণীয় বিষয়ের সাথে অংশ প্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

স্বাআলো/এসএস

.