ফুটবলারদের ব্যাগ থেকে ডলার খোয়া, চোর ধরতে মাঠে র‌্যাব-ডিবি-এপিবিএন

সাফজয়ী নারী ফুটবল দলের দুই সদস্য কৃষ্ণা রানী সরকার ও শামসুন্নাহার সিনিয়রের ডলার চুরির ঘটনায় অভিযোগ না পেলেও তদন্ত শুরু করেছে বিমানবন্দরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা গোয়েন্দা সংস্থা, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের একাধিক ইউনিট, এপিবিএন ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

জানা গেছে, কৃষ্ণার লাগেজের তালা ভেঙে ৯০০ মার্কিন ডলার ও ৫০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে। অন্যদিকে শামসুন্নাহারের লাগেজ কেটে নিয়েছে ৪০০ মার্কিন ডলার। এর পাশাপাশি কিছু মূল্যবান জিনিসপত্র খোয়া গেছে এই দুই ফুটবলারের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপির উত্তরা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ মোর্শেদ আলম বলেন, চুরির ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত কিংবা মৌখিক অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে আমরা বিমানবন্দর এলাকার একাধিক সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যবেক্ষণ করছি।

বিমানবন্দরে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক পলাশ বলেন, আমরা সংবাদ পাওয়ার পর স্বপ্রণোদিত হয়ে বিষয়টি তদন্ত করছি।

গোয়েন্দা উত্তরা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) আকরামুল হোসেন বলেন, এরই মধ্যে ডিবির ইউনিট কাজ শুরু করেছে।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, নেপালে সাফ মিশন শেষ করে বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে দেশে ফেরে নারী ফুটবল দল। ফেরার পরপরই জয়ী দলের সদস্যের অর্থ চুরির ঘটনা দুঃখজনক এবং মর্মান্তিক। এ ঘটনার সঙ্গে যে বা যারাই জড়িত তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে এরই মধ্যে র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করেছে। এছাড়া বিমানবন্দর ও এর আশপাশের এলাকার একাধিক সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

বুধবার রাতে বাফুফে ভবনে লাগেজ আসার পর চুরির ঘটনা দৃষ্টিগোচর হয়েছে ফুটবলারদের। কৃষ্ণা রানী সরকার ফাইনালে নেপালের বিপক্ষে জোড়া গোল করে বাংলাদেশকে চ্যাম্পিয়ন করতে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন। শামসুন্নাহার জুনিয়র প্রতি ম্যাচেই একাদশে খেলেছেন।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
স্পোর্টস ডেস্ক