নড়াইলে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

নড়াইলে প্রথম স্ত্রী মমতাজ হত্যার অভিযোগে স্বামী হেদায়েত শেখকে (৫৫) মৃত্যুদণ্ডাদেশ ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অপর দুইজন আসামিকে খালাস প্রদানের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে নড়াইলের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক কেরামত আলী এ আদেশ দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হেদায়েত শেখ জেলার লোহাগড়া থানার পদ্মবিলা গ্রামের গোলাম রব্বানীর ছেলে। রায়ের সময় হেদায়েত শেখ পলাতক ছিলো। খালাস প্রাপ্তরা হলেন খলিল শেখ ও দ্বিতীয় স্ত্রী আঞ্জুয়ারা বেগম।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ঘটনার পাঁচ বছর আগে প্রথম স্ত্রী মমতাজ বেগম থাকা সত্ত্বে হেদায়েত আঞ্জুয়ারা বেগম নামে এক মহিলাকে দ্বিতীয় বিবাহ করেন। বিয়ের পর ২০১২ সালের ৩ ফ্রেরুয়ারি স্ত্রী মমতাজ রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। সকালে মমতাজের ছেলে রবিউল ইসলাম মাকে না দেখে পিতা ও ছোট মা আঞ্জুয়ারাকে মা কোথায় তা জানতে চাইলে তারা কোনো সুদুত্তর না দিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় পদ্মবিলা বিলে মমতাজকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নিহতের সন্তান রবিউল বাদী হয়ে পিতা, ছোট মা আঞ্জুয়ারাসহ তিনজনের বিরুদ্ধে লোহাগড়া থানায় একটি হত্যা মামলা করে। আদালতে ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি হেদায়েত শেখের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে মৃত্যুদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অপর দুইজন আসামিকে খালাস প্রদানের আদেশ দেন বিচারক। রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জজ আদালতের পিপি অ্যাড: এমদাদুল ইসলাম।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
সুজয় বকসী, নড়াইল