দেশে খাদ্য নিয়ে কোনো সংকট হবে না: চুয়াডাঙ্গায় কৃষিমন্ত্রী

দেশে খাদ্য নিয়ে কোনো সংকট হবে না বলে মন্তব্য করেছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে আমরা বাংলাদেশকে পৃথিবীর বুকে স্বাধীন দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছি। মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছিলো লক্ষ মায়ের ছেলেরা, কামার কুমোর, শ্রমিক রিকশাচালক, ভ্যানচালক, পুলিশ, সেনাবাহিনীর ভায়েরা কাধে কাধ মিলিয়ে যুদ্ধ করেছে।

১০ বছর আগে দেশে ভুট্টার আবাদ হতো না। দেশে এখন ব্যাপক হারে ভুট্টার চাষ হচ্ছে। ভুট্টা আমরা খাচ্ছি গরু, ছাগল, হাস, মুরগিকে ভুট্টা খায়াচ্ছি আর আমরা এদের মাংস খাচ্ছি, ডিম খাচ্ছি এভাবে আমরা ভুট্টা খাচ্ছি।

আগে উত্তরবঙ্গে না খেয়ে প্রতিদিন ৫-৬ জন করে মানুষ মারা যেত। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর কোন মানুষ না খেয়ে মারা যায় নি। সবই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৃতৃত্ব।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দুপুর ১টার দিকে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার হইবতপুর ৫ শহীদের স্মৃতি স্তম্ভ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি সংগ্রহশালা ও নবান্নে ধান কর্তন উদ্বোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী ডাঃ আব্দুর রাজ্জাক এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ১৪ বছরে সারের দাম এক টাকা ও বাড়াইনি সরকার সারে হাজার হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে। ডি এপি সার ১৬-টাকা, ইউরিয়া ২২ টাকা, টিএসপি ২৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আন্তজার্তিক বাজারে এমন দাম কোথাও নেই। কেজিতে ৬০ টাকা ভর্তুকি দেয়া হচ্ছে। ভারতে সে সারের দাম প্রতি কেজি আমাদের তা বিক্রি হচ্ছে ২০-২২ টাকায় আন্তজাতিক বাজারে কেজি প্রতি ১০০টাকা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কৃষি মন্ত্রণালয়ের প্রধান উপদেষ্টা হামিদুর রহমান।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান।

বিশেষ অতিথী ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলি আজগার টগর, সচিব, কৃষি মন্ত্রণালয় সায়েদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়া মীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ, চুয়াডাঙ্গ জেলাপরিষদের প্রশাসক মাহাফুজুর রহমান মনজু। এরপর সন্ধায় মন্ত্রী দামুড়হুদার ইব্রাহিমপুর মেহেরুননেছা পার্কে তিন দিনব্যপী কৃষি মেলার উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, পারকৃষ্ণপুর-মদনাইউপির চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা এসএম জাকারিয়া আল।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
মফিজুর রহমান জোয়ার্দ্দার, চুয়াডাঙ্গা
জেলা প্রতিনিধি