র‌্যাব ও পুলিশ পরিচয়ে চালকের সর্বস্ব হাতিয়ে নিতেন ইলিয়াস!

নিজেকে কখনো র‌্যাবের মেজর আবার কখনো পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয় দিতেন ইলিয়াস (৫১)। মূলত এসব ভুয়া পরিচয়ে পিকআপ ভাড়া নিতেন তিনি। এরপর সুযোগ বুঝে কৌশলে ওই চালকের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে পালিয়ে যেতেন। দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্নজনের সাথে এমন প্রতারণা করে আসছেন তিনি। অবশেষে তিনি র‌্যাবের হাতে ধরা পড়েছেন।

বুধবার তাকে গ্রেফতারের সময় একটি মোবাইল ফোন ও প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া নগদ ১০ হাজার ৫০০ টাকা জব্দ করে র‌্যাব-১০।

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) র‌্যাব-১০ জানিয়েছে, গতকাল বুধবার (১৬ নভেম্বর) রাজধানী যাত্রাবাড়ীর মাছবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি গত ১৩ নভেম্বর ফারুক নামের এক চালকের কাছ থেকে যাত্রাবাড়ী থেকে মাদারীপুর বাসা বদল করবেন বলে পিকআপ ভাড়া করেন। প্রতারক ইলিয়াস তাকে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয় দেন। এরপর পিকআপ চালকের কাছে বলেন, লেবারদের টাকা পরিশোধ করতে হবে, কিন্তু নগদ টাকা নেই। এজন্য চেক ভাঙাতে হবে। সরল মনে ফারুক তার কথা বিশ্বাস করেন। পরে ইলিয়াস তার কাছ থেকে ২৬ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যান। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-১০ জানায়, ইলিয়াস নিজেকে কখনো মেজর, কখনো অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবং কখনো র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে মালামাল পরিবহনের কথা বলে পিকআপ, মিনি-ট্রাক ও ট্রাক ভাড়া করতেন। এরপর সুবিধাজনক স্থানে চালককে ডেকে তার টাকা ও মোবাইলফোন কৌশলে হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যেতেন।

তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় পাঁচটি মামলা রয়েছে। এই ঘটনায় ভুক্তভাগী যাত্রাবাড়ী থানায় একটি মামলা করেছেন। সেই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ