আবেদনের নিয়মে পরিবর্তন আনছে এনটিআরসিএ

৭০ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যে চলতি নভেম্বর মাসে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। যদিও নভেম্বরে গণবিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশ নিয়ে কিছুটা শঙ্কা দেখা দিয়েছে। শঙ্কা কাটিয়ে চলতি মাসেই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে চায় এনটিআরসিএ। এই গণবিজ্ঞপ্তিতে বেশ কিছু পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে এনটিআরসিএ।

জানা গেছে, শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করার দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি এখন পর্যন্ত তিনটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। প্রতিটি গণবিজ্ঞপ্তিতে নিবন্ধনধারীদের একাধিক আবেদন করতে হয়েছে। এতে চাকরিপ্রার্থীদের বিপুল পরিমাণ টাকা খরচ হয়েছে। এছাড়া অনেকে সার্টিফিকেটে যে পদ উল্লেখ রয়েছে তার বাইরে অন্য পদেও আবেদন করেছেন। এতে করে সুপারিশ পাওয়ার পর যোগদানসহ এমপিওভুক্ত হওয়া নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন প্রার্থীরা। চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি এই বিষয়গুলো আমলে নিয়ে আবেদনের ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে।

এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, এবার প্রার্থীরা পূর্বের মতো একাধিক আবেদন করতে পারবেন না। একজন প্রার্থী একটি আবেদন করবেন। এজন্য তাকে এক হাজার টাকা ফি পরিশোধ করতে হবে। একটি আবেদনের মাধ্যমে ৪০টি প্রতিষ্ঠান পছন্দক্রম দিতে পারবেন চাকরিপ্রার্থীরা।

৪০টি পছন্দক্রম দেয়ার পর চাকরিপ্রার্থীরা এই ৪০টি প্রতিষ্ঠানের বাইরে অন্য প্রতিষ্ঠানে যেতে চাইলে তাকে একটি টিক চিহ্ন দিতে হবে। এতে করে পছন্দক্রমের ৪০ প্রতিষ্ঠানে প্রার্থী সুপারিশ না পেলে নম্বর অনুযায়ী তাকে অন্য আরেকটি প্রতিষ্ঠানে সুপারিশ করা হবে। তবে যদি ওই প্রার্থী ৪০টি প্রতিষ্ঠানের বাইরে না যেতে চান তাহলে তাকে টিক চিহ্ন দিতে হবে না।

ওই সূত্র আরো জানায়, প্রার্থীদের সার্টিফিকেটে যে বিষয়গুলো উল্লেখ থাকবে তারা যেন কেবল সেই বিষয়গুলোতেই আবেদন করতে পারেন সেই ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে টেলিটককে। টেলিটক সেভাবেই আবেদনের সফটওয়্যার আপডেটের কাজ করছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এনটিআরসিএ সচিব ওবায়দুর রহমান বলেন, চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের ক্ষেত্রে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হচ্ছে। এই পরিবর্তনগুলোর ফলে এবার চাকরিপ্রার্থীদের ভোগান্তি অনেক কমবে।

তিনি বলেন, এবার একটি আবেদনের মাধ্যমে চাকরি পাবেন নিবন্ধনধারীরা। আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে এক হাজার টাকা। আবেদনের সময় প্রার্থীরা ৪০টি স্কুল অথবা কলেজ পছন্দক্রম দিতে পারবেন। এটি সাবধানে পূরণ করতে হবে। প্রার্থীরা যদি তাদের পছন্দক্রমের বাইরে অন্য প্রতিষ্ঠানেও সুপারিশ পেতে চান তাহলে তাকে টিক চিহ্ন দিতে হবে। এতে প্রার্থীর পছন্দ করা ৪০টি প্রতিষ্ঠান না আসলে আমরা তাকে অন্য প্রতিষ্ঠানে সুপারিশ করবো।

তিনি আরো বলেন, আমরা চলতি নভেম্বর মাসেই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে চাই। শূন্য পদের তালিকা যাচাইয়ের কাজ শেষ হলে এটি আমর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠাবো। এরপর গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

স্বাআলো/এসএ