নড়াইলে সীমানা প্রাচীর দিয়ে বসতবাড়ি ও দোকান আটকে দেয়ার হুমকি

নড়াইল সদরের তুলারামপুর-মাইজপাড়া সরকারি সড়কের পাশে সীমানা প্রাচীর দিয়ে বসতবাড়ি ও দোকানিদের যাতায়াতের পথ আটকে দেয়ার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভুক্তভোগী পরিবার ও দোকানদারদের আয়োজনে সোমবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে তুলারামপুরের তুলারামপুর-মাইজপাড়া সড়কের উল্লেখিত স্থানের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন- ভুক্তভোগী মনোয়ারা বেগম, রজিবুল তরফদার শান্ত, ওবায়দুর তরফদার, ইদ্রিস তরফদার, সেলিম তরফদার, মুন্নু তরফদারসহ অনেকে।

বক্তারা বলেন- তুলারামপুর এলাকার মোফাকারুল ইসলামের কাছ থেকে প্রায় ১২ বছর আগে ১০ শতক জমি কেনেন মনোয়ারা বেগম। সড়ক ও জনপথ বিভাগের তুলারামপুর-মাইজপাড়া সড়কের গাঁঘেষা এ জমিতে মনোয়ারা বেগম পাঁকাবাড়ি করে বসবাস করে আসছেন। এছাড়া এই জায়গায় ছয়টি দোকান রয়েছে। হঠাৎ করে মোফাকারুল ইসলাম দাবি করেন রাস্তা ঘেষে দোকানের সামনে তার এক শতক জমি রয়েছে।

এখানে তিনি সীমানা প্রাচীর দিয়ে মনোয়ারা বেগমের বাড়ির যাতায়াত পথ আটকে দিবেন। এছাড়া ছয়টি দোকানের ভাড়াটিয়াকে এক সপ্তাহের মধ্যে দোকান ছেড়ে দিতে বলেছেন মোফাকারুল ইসলাম।

এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন ভুক্তভোগীরা।

এ বিষয়ে এক ভাড়াটিয়া মতিয়ার রহমান জানান, তাকে মোফাকারুল তার দোকানের সামনে ইট-বালি রাখবে বলে, বার বার দোকান ছেড়ে দেয়া জন্য বলে, অন্য জায়গায় দোকান নিতে বলে, দোকানের শার্টার খুললেও অন্য স্থানে কাজ করতে বলেছে।

এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করে গত ২১ নভেম্বর জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন ভুক্তভোগী মনোয়ারা বেগম।

এ বিষয়ে মোফাকারুল ইসলাম জানান, আমি যে জমি বিক্রি করেছি, সে জমি বাদেও রাস্তার পার্শ্বে দোকানের সামনে আমার জমি আছে। আমার জমি রাস্তাসহ নদীর মধ্যেও আছে। আমি প্রাচীর দেয়ার কথা বলিনি। আমি জমি মেপে ১০ শতক তাদের বুঝে দেবো, বাকি জায়গা আমার।

স্বাআলো/এস

.

Author
সুজয় বকসী, নড়াইল