প্রাইভেট না পড়ায় ফেল করানোর অভিযোগ, কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রাইভেট না পড়ায় গণিত বিষয়ে ফেল করিয়ে দেয়ায় বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার (২১ নভেম্বর) বিকালে নগরীর নিজ বাসার বারান্দায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে।

নিহত ছাত্রীর নাম মালিয়া মারিয়া মৌলি (১৭)। সে বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী ও নগরীর শের-ই বাংলা সড়কের বায়তুল মিনা ভবনের বাসিন্দা কলেজ শিক্ষক মোশারেফ হোসেনের মেয়ে।

মৌলির মা কোয়েল জানান, দুপুর ১টায় কলেজ থেকে মৌলি বাসায় আসে। এ সময় মৌলি তাকে জানায়, গণিত বিষয়ে ফেল করতে পারে না সে। তাকে ফেল করানো হয়েছে। এ জন্য তার মন ভালো নেই, মেজাজও খারাপ। এরপর মৌলি নিজ কক্ষে প্রবেশ করে। কিছুক্ষণ পর কোনো সাড়া না পেয়ে বারান্দায় গিয়ে মৌলিকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। পরে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ সময় বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি ব‌রিশা‌লের সভাপতি অধ্যক্ষ মহসিন উল-ইসলাম হাবুল জানান, কলেজের গণিত শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়েনি মৌলি। এ কারণে তাকে বর্ষ পরীক্ষায় গণিত বিষয়ে ফেল করানো হয়েছে। বিষয়টি মৌলি শিক্ষকের কাছে জানতে চেয়েছিলো। তখন শিক্ষক তাকে কোনো কিছু বলেছে, যা মেনে নিতে পারেনি। তাই নিজেকে শেষ করে দিয়েছে।

বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আসাদ বলেন, প্রাইভেট না পড়ানোর জন্য ছাত্রীকে ফেল করিয়ে দেয়ায় আত্মহত্যা করেছে বলে শুনেছি। কিন্তু কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। তবুও আমি খোঁজ নিয়ে জেনেছি কেউ প্রাইভেট পড়ায় কি না। কিন্তু কেউ প্রাইভেট পড়ায় না। প্রাইভেট পড়ানোর বিষয়টি খোঁজ নিয়ে জানতে পারলে এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে লেখা হবে।

তিনি আরো জানান, গত ১৪ ও ১৬ নভেম্বর প্রথম বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। পরীক্ষার ফল কারো আশানুরূপ না হলে তাদের মূল্যায়নের জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে। এই সুযোগ দেয়ার পরও এটা হওয়ার কথা নয়।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিমুল করিম বলেন, খবর পেয়েছি। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা হবে। কোনো অভিযোগ দিলে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
বরিশাল ব্যুরো