রাজশাহীর নৈতিকতা বর্জিত শিক্ষকের যথোপযুক্ত শাস্তি হোক

রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলায় ভয় দেখিয়ে ছাত্রীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করা সেই শিক্ষককে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আদালতের নির্দেশে তাকে (২১ নভেম্বর বিকেলে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম মাসুদ সরকার (৫০)। তিনি বাটুপাড়া কারিগরি ও বাণিজ্যিক ইনস্টিটিউটের ‘ড্রেস মেকিং অ্যান্ড টেইলারিং’ ট্রেডের শিক্ষক। তিনি একই গ্রুপের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের পর ধারণ করা ভিডিও ফাঁস করে দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে গত তিন বছর ধরে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছিলো। ওই মামলায় আজ অভিযুক্ত সেই শিক্ষককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

ছাত্রীকে শিক্ষক কর্তৃক যৌন হয়রানির অভিযোগ প্রায় শোনা যায়। কিন্তু বিস্ময়কর ব্যাপার হলো এ পর্যন্ত কোন শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা যায়নি। এতে অপরাধীরা ঘৃণিত অপরাধটি করতে উৎসাহিত হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাধা কোথায় তা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষই বলতে পারবে। এ ক্ষেত্রে রাজশাহীর ওই নৈতিকতাহীন শিক্ষককে কারাগারে পাঠানোর ঘটনাটি দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলো। তার সুষ্ঠু বিচার হয়ে যথোপযুক্ত শাস্তি হোক।

অভিভাবকরা নিজের আদরের সন্তানটিকে শিক্ষকদের হাতে তুলে দেন শিক্ষা-দিক্ষায় মানুষ করার জন্য। দিনের বেশি ভাগ সময় ওই শিক্ষার্থী তার শিক্ষাগুরুর কাছেই থাকে। আর অভিভাবকরা নিশ্চিন্তে থাকেন বাড়িতে বা কর্মে। একজন আদর্শ শিক্ষকের কাছ থেকে শিক্ষার্থীরা আদর্শ মানুষ হবার শিক্ষা পেয়ে দেশ ও জাতি গড়ার কাজে যুক্ত হয়। অতীতে অন্তত তাই দেখা গেছে। কিন্তু সেই শিক্ষকরা যদি অমানুষের মত কাজ করেন তাহলে তাদের কাছে শিক্ষার্থীদের পাঠিয়ে মানুষ গড়ার স্বপ্ন দেখা যায় না।

শিক্ষকরা মানুষ গড়ার কারিগর। কিন্তু এই সুনাম মনে হয় বেশি দিন থাকবে না। কারণ এক শ্রেণির শিক্ষকদের বিরুদ্ধে এমন ধরনের অভিযোগ প্রায় শোনা যাচ্ছে। তারা ন্যায় নীতি পদদলিত করে চলেছেন। যারা শিক্ষকতার পেশায় এসে এ পেশাটাকে অপবিত্র করে তুলেছেন তাদেরকে এ অঙ্গন থেকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিদায় করে দেয়া ভালো। কারণ তারা যদি আকণ্ঠ অপরাধে নিমজ্জিত থাকেন তাহলে তাদের হাত দিয়ে সুনাগরিক গড়া একেবারে অসম্ভব। আর লেখাপড়া শিখে যদি সুনাগরিক গড়ে না ওঠে তাহলে দেশ পরিচালনার জন্য সৎ নেতৃত্বের মানুষ পাওয়া যাবে না। জাতির জন্য এটা সন্দেহাতীতভাবে অশনিসংকেত।

স্বাআলো/এসএস

.