পাবলিক পরীক্ষা থেকে সেই পাঁচ শিক্ষককে আজীবন অব্যাহতি

অবশেষে আলোচিত সেই পাঁচ শিক্ষকের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে শিক্ষাবোর্ড। এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের বাংলা প্রথম পত্রে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক প্রশ্ন করায় পাঁচ শিক্ষককে পাবলিক পরীক্ষাসংক্রান্ত সব দায়িত্ব থেকে আজীবন অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন প্রশ্ন প্রণয়নকারী এবং চারজন মডারেটর বলে জানাগেছে। এক সময় এরাই ছিলো সরকারের আস্থাভাজন শিক্ষক।

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) যশোর শিক্ষা বোর্ডও এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বুধবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর এবং ঢাকা শিক্ষা বোর্ড এ সংক্রান্ত আদেশের কপি হাতে পেয়েছে।

পাবলিক পরীক্ষা থেকে অব্যাহতি পাওয়া শিক্ষকরা হলেন- ঝিনাইদহের মহেশপুরের ডা. সাইফুর রহমান ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক প্রশান্ত কুমার পাল, সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শফিকুর রহমান, কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা আদর্শ কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রেজাউল করিম, নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ তাজউদ্দিন শাওন এবং মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শ্যামল কুমার ঘোষ।

গতকাল যশোর শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মাধব চন্দ্র রুদ্র স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত আদেশে বলা হয়, ২০২২ সালের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে অনুষ্ঠিত বাংলা প্রথম পত্র বিষয়ের প্রশ্নপত্রটি যশোর শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষক দ্বারা প্রণয়ন ও পরিশোধন করা হয়েছে। যশোর বোর্ডের গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুসারে, প্রশ্নপত্রটি সৃজনশীল প্রশ্ন প্রণয়নের নির্দেশনার পরিপন্থি হওয়ায় পাঁচ শিক্ষককে পাবলিক পরীক্ষাসংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম থেকে বিরত রাখা হলো। ভবিষ্যতে বোর্ডের পাবলিক পরীক্ষাসংক্রান্ত কোনো কার্যক্রমে তাদের সম্পৃক্ত করা হবে না।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
ঢাকা অফিস