প্রতি ঘণ্টায় পাঁচজন নারী পরিবারের হাতে খুন

গত বছর অর্ধেকের বেশি নারীকে খুন করেছেন তার সঙ্গী বা ঘনিষ্ঠ আত্মীয়রা। জাতিসংঘের রিপোর্টে এমন ভয়াবহ তথ্যই উঠে এসেছে।

জাতিসংঘের রিপোর্টের মতে, ২০২১ সালে ৪৫ হাজার নারী খুন হয়েছিলেন তাদের সঙ্গী বা পরিবারের মানুষের হাতে।

জাতিসংঘের অফিস অন ড্রাগস অ্যান্ড ক্রাইম এবং ইউএন উইমেন জানিয়েছে, প্রতি ঘণ্টায় পাঁচজনের বেশি নারী পরিবারের কোনো সদস্যের হাতে খুন হচ্ছেন। রিপোর্টে বলা হয়েছে, বাস্তবে সংখ্যাটা আরো অনেক বেশি হতে পারে।

জাতিসংঘের মতে, গতবছর বিশ্বজুড়ে ৮১ হাজার নারী খুন হয়েছেন। জাতিসংঘের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গত বছর খুন হওয়া মেয়েদের মধ্যে ৫৬ শতাংশ মারা গেছেন তাদের সঙ্গী বা পরিবারের মানুষদের হাতে। তাই বোঝা যাচ্ছে, নারীদের কাছে ঘর খুব নিরাপদ জায়গা নয়।

তবে বিশ্বজুড়ে যত মানুষ খুন হয়েছেন, তার মধ্যে ৮১ শতাংশ হলো পুরুষ। কিন্তু নারী ও মেয়েরা লিঙ্গ-ভিত্তিক সহিংসতার শিকার হয়েছেন। আর ২০২১ সালে এশিয়ায় মেয়েরা সবচেয়ে বেশি খুন হয়েছেন। মোট ১৭ হাজার আটশ মেয়ে খুন হয়েছেন এশিয়ায়।

জাতিসংঘের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নারীদের হত্যা বন্ধের কাজে খুব বেশি প্রগতি হয়নি। ইউরোপে পরিবারের মানুষদের হাতে মেয়েদের হত্যার পরিমাণ গত শতকে ১৯ শতাংশ কমেছে। আমেরিকায় কমেছে ছয় শতাংশ।

তবে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২০ সাল উত্তর আমেরিকার মেয়েদের ক্ষেত্রে একেবারেই ভালো বছর নয়। কোভিড লকডাউনের ফলে নারীদের ওপর অত্যাচার বেড়েছে বলে জানানো হয়েছে।

জাতিসংঘ জানিয়েছে, তাদের হাতে পর্যাপ্ত তথ্য না থাকায় আফ্রিকা, এশিয়ার ক্ষেত্রে এই ধরনের কথা তারা বলতে পারছে না।

জাতিসংঘের আবেদন, লিঙ্গভিত্তিক অপরাধ বন্ধ করার জন্য সব দেশ যেন ব্যবস্থা নেয়। তারা যেন লিঙ্গসাম্যের নীতি নিয়ে চলে। নারীর উপর অত্যাচার বন্ধ করার জন্য যেন প্রতিটি সরকার যথেষ্ট পরিমাণ অর্থ খরচ করে।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
আন্তর্জাতিক ডেস্ক