খেজুরের রস খেয়ে নিপা ভাইরাসের উপসর্গ, হাসপাতালে ৮

গ্রামের বাড়ি থেকে আনা খেজুরের রস খেয়ে নিপা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে সাভারে একই পরিবারের নারী-শিশুসহ পাঁচ সদস্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। স্থানীয় প্রাইম হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন তারা। এ ছাড়া গ্রামের বাড়ি পাবনায় সেই রস খেয়ে এই পরিবারের আরো তিনজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিন দিন।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে শারীরিকভাবে সুস্থ হওয়া তাদের সবাইকে সাভারের প্রাইম হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়।

তারা এখন বাড়িতে আছেন। অপরদিকে গ্রামে অসুস্থ তিনজনও সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরেছেন।

মোস্তফা কামাল ও তার স্ত্রী জানান, গত বুধবার (২৩ নভেম্বর) বিকেলে গ্রামের বাড়ি পাবনা থেকে আনা খেজুরের রস খান পরিবারের সদস্যরা। পরে রাত থেকেই তাদের বমি ও পেটের সমস্যা দেখা দেয়। এ ঘটনায় পরদিন তারা হাসপাতালে ভর্তি হন। প্রাথমিকভাবে তারা নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানান চিকিৎসক।

আক্রান্তরা হলেন সাভারের জালেশ্বর শিমুলতলা এলাকার মোস্তফা কামাল, তার স্ত্রী মোসলিমা বেগম ও মেয়ে মারিয়া এবং মনিরা খাতুন ও তার মেয়ে মনামি। মোস্তফা কামালের বাড়ি পাবনা জেলায়। সেখান থেকে পাঠানো খেজুরগাছের রস খেয়েই তারা নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে প্রাথমিক ধারণা চিকিৎসকের। পরে আজ বিকেলে তাদের হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়।

স্বজনরা জানান, গ্রামের বাড়ি পাবনায় মোস্তফা কামালের শ্যালিকা শামীমা, শাশুড়ি রহিমা বেগম ও ভাইয়ের মেয়ে মাহিয়া একই উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তারা আজ সকালে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

মোস্তফা কামালের ভায়রা ভাই নাজমুল আলম বলেন, খেজুরের রস খাওয়ার পর থেকেই আমাদের পরিবারের শিশুসহ আটজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে আজকে বাড়ি ফিরেছেন। এখন সবাই অনেকটা সুস্থ। তবে সবাইকে সচেতন হতে হবে। যাতে আমাদের মতো এমন পরিস্থিতিতে কেউ না পড়ে।

সাভারে বেসরকারি প্রাইম হাসপাতালের মেডিক্যাল উপদেষ্টা ডা. এম এ রাজ্জাক জানান, রোগীর উপসর্গ এবং তাদের সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিকভাবে তারা নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাদের শরীরের উন্নতি হওয়ায় তাদের ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
ঢাকা অফিস