দেশের কোনো ব্যাংকই দেউলিয়া হবে না, বললেন পরিকল্পনামন্ত্রী

দেশের কোনো ব্যাংকই দেউলিয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেছেন, দুই একটি ঘটনার কারণে গোটা ব্যাংকিং ব্যবস্থা নিয়ে রায় দেয়া উচিত নয়।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউটে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

কিছুদিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে গুজব ছড়িয়ে পড়ে যে ব্যাংকে টাকা নেই। শ্রীলঙ্কার মতো পরিস্থিতি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশে। তাই গ্রাহকদের অনেকে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নেন। এমনকি ব্যাংক থেকে টাকা তোলার জন্য হুড়াহুড়িও লেগে যায় বলে সামাজিক মাধ্যমগুলোতে বিভ্রান্তিকর নানা তথ্য ছড়িয়ে দেয়া হয়। পরে বাংলাদেশ ব্যাংক, অর্থনীতিবিদ ও ব্যাংকাররা স্পষ্ট করে বলেন যে, এসব তথ্যের কোনো ভিত্তি নেই।

এর মধ্যে গত ২৪ নভেম্বর একটি জাতীয় দৈনিকে ইসলামী ব্যাংক থেকে নভেম্বর মাসের ১ থেকে ১৭ তারিখ পর্যন্ত দুই হাজার ৪৬০ কোটি টাকা তুলে নেয়ার প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনটি প্রকাশ হওয়ার পর অনেক আমানতকারীর মধ্যে উদ্বিগ্ন দেখা দেয়। ব্যাংক দেউলিয়া হচ্ছে বলে কেউ কেউ গুজব ছাড়ায়। এমন অবস্থার মধ্যে দেশের ব্যাংকিং খাত নিয়ে কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

এম এ মান্নান বলেন, আমাদের ব্যাংকিং খাত নিয়ে এখন অনেক আলোচনাই হচ্ছে। কিছু কিছু বিষয় গণমাধ্যমেও আসছে। তবে দুই একটি ঘটনার কারণে গোটা ব্যাংকিং ব্যবস্থা নিয়ে রায় দেয়া উচিৎ নয়।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরো বলেন, এখানে আইন রয়েছে, অন্যায় হয়ে থাকলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোনো ব্যাংকই দেউলিয়া হবে না। কয়েকদিন আগে একটা গুজব ছড়িয়েছিল যে ব্যাংকে টাকা পাওয়া যাচ্ছে না। যেটা সম্পূর্ণ ভুল। একটা শ্রেণি অসৎ উদ্দেশ্যে এসব গুজব ছড়ায়।

আরেক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী আব্দুল মান্নান বলেন, সরকার এখন কিছুটা চাপে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সবাইকে মিতব্যয়ী হতে বলেছেন। মূল্যস্ফীতি এখন নিম্নগামী। খাদ্য, তেল, গ্যাসের দাম কমছে। আমাদের দেশেও মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমেছে। আগামী মাসে এটা আরো কমে যাবে।

স্বাআলো/এসএ