নড়াইলে বাবা হত্যার বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলনে ছেলে

বাবা হত্যার মূল আসামিদের বাদ দিয়ে সিআইডির তদন্ত কর্মকর্তা ঘটনার সাথে জড়িত নয় এমন নির্দোষ ব্যাক্তিদের নামে চার্জশীট দেয়ায় ন্যায়বিচার চেয়ে, মূল আসামিদের চার্জশীটে যুক্ত করা দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন লোহাগড়া উপজেলার লাহুড়িয়া ডিগ্রীরচর গ্রামের শেখ ইলিয়াছের ছেলে রকিব হোসেন ইমরান।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারী) বেলা সাড়ে ১১টায় নড়াইল প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য রকিব হোসেন ইমরান লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২০১৪ সালের ৫ নভেম্বর প্রায় একশত বছরের বিরোধকে কেন্দ্র করে লাহুড়িয়া ডিগ্রীরচর গ্রামের মৃত আজিজ মোল্যার পুত্র হারুন মোল্যা ও সোবাহান মোল্যা, রশিদ মোল্যার পুত্র কুতুব উদ্দিন লুলু, হারুন মোল্যার পুত্র দিদার মোল্যা, আকবর মোলার পুত্র রাজু মিয়া, মৃত মোতালেব মোল্যার পুত্র আমিনুর মেল্যা, আছাদ মোল্যার পুত্র নাসিমুল, মৃত বজলু শরীফের পুত্র হারুন শরীফ, মৃত মান্নান মল্লিকের পুত্র শিহাব মল্লিক ও জিল্লু মল্লিক, নওশের মল্লিকের পুত্র মফিজার, ইদ্রিসের পুত্র রবিউল, আয়নালের পুত্র নজরুল, মৃত হারুন মোল্যার পুত্র রুবেল দলবদ্ধ হয়ে আমার পিতা শেখ ইলিয়াছকে আমাদের বসতঘরে ঢুকে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।

ঘটনা উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে ৭ নভেম্বর লোহাগড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করি (মামলা নম্বর: ৪ তারিখ: ৭.১১.২০২২, ধারা ৩০২/৩৪)। মামলা দায়েরের পর লোহাগড়া থানার এসআই বিপ্লব কুমার সাহা তদন্তভার গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে মামলাটি নড়াইল সিআইডি বিভাগে স্থানান্তরিত হয় এবং সিআইডির এসআই রবিউল আলম মামলাটি তদন্ত করেন।

সিআইডির এসআই রবিউল আলম মামলাটি তদন্তকালে লাহুড়িয়া এগারনালী গ্রামের মৃত রোস্তম মোল্যার ছেলে আতিয়ার রহমানকে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার করেন। তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রবিউল আলম মামলাটি তদন্তশেষে দায়েরকৃত মামলার এজাহারে উল্লেখিত সব আসামিকে বাদ দিয়ে মামলার ৪ নম্বর সাক্ষী আহম্মদ শেখের অপর তিন ভাই উসমান শেখ চান শেখ খোকন শেখ ও অপর এক প্রতিবেশী সাইফার হোসেনসহ মোট ৫ জনের নামে চার্জশীট প্রদান করেন।

রকিব হোসেন ইমরান আরো বলেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আমার পিতার মূল হত্যাকারীসহ অন্যান্য আসামিদের নাম বাদ দিয়ে অন্য নির্দোষ ব্যাক্তিদের নামে চার্জশীট প্রদান করায় আমি লোহাগড়া আমলী আদালতে উক্ত চার্জশীটের বিরুদ্ধে নারাজি দিয়েছিলাম, পরবর্তীতে জেলা জজ আদালতে নারজি দিলেও সেটি খারিজ হয়ে যায়। আমি উক্ত চার্জশীটের বিরুদ্ধে নারাজি দিতে উচ্চ আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমি আপনাদের মাধ্যমে আমার বাবাকে হত্যার সুষ্ঠ বিচার দাবি করছি।

স্বাআলো/এসএ

.

Author
সুজয় বকসী, নড়াইল