খুলনায় বিয়ের এক মাসের মধ্যেই দুলাভাইয়ের সঙ্গে উধাও শ্যালিকা

ফাইল ছবি

খুলনার পাইকগাছা উপজেলায় বিয়ের এক মাসের মধ্যেই দুলাভাইয়ের সঙ্গে শ্যালিকা পালিয়ে গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শনিবার (১৪ জানুয়ারি) এ ঘটনায় পাইকগাছা থানায় অভিযোগ করেছেন। এর আগে মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) রাতে এ ঘটনা ঘটে।

পালিয়ে যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন- সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খড়িয়াটি গ্রামের লুৎফর রহমানের ছোট মেয়ে আয়েশা ও তার দুলাভাই আরিফুল পাইকগাছার বাঁকা গ্রামের বাসিন্দা।

শ্বশরবাড়ির লোকজনের দাবি, গত ১০ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রেমের টানে সোহেল রানার বাড়ি থেকে শ্যালিকাকে নিয়ে ভেগে গেছেন দুলাভাই। বিভিন্ন জায়গায় খুঁজে না পেয়ে শ্বশুর আবদুল হাকিম গাজী বাদী হয়ে শনিবার (১৪ জানুয়ারি) পাইকগাছা থানায় অভিযোগ করেছেন।

শ্যালিকার শ্বশুরবাড়ির লোকজন জানান, গত বছরের ৮ ডিসেম্বর আয়েশার সঙ্গে বিয়ে হয় সোহেল রানার। তিনি পাইকগাছার বৃত্তি গোপালপুর গ্রামের হাকিম গাজীর ছেলে।

আয়েশার শাশুড়ি হাসিনা বেগম জানান, আমার ছেলের বউয়ের সঙ্গে তার দুলাভাই আরিফুল ইসলামের দীর্ঘদিনের প্রেম। এ নিয়ে কয়েকবার স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠক হয়েছে। কোনোভাবেই তাদের সম্পর্ক ছিন্ন করা যায়নি।

আয়েশার স্বামী সোহেল রানার দাবি, বিয়ের প্রায় এক মাস যেতে না যেতেই টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে আয়েশা দুলাভাইয়ের সঙ্গে চলে গেছে। তাদের এখনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

অভিযোগের বিষয়ে দুলাভাই আরিফুল জানান, আমি আমার বাড়িতেই আছি। আমার সঙ্গে আয়েশার কোনো যোগাযোগ হয়নি। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে।

পাইকগাছা থানার ওসি জিয়াউর রহমান জানান, এ খবরটি জেনেছি। প্রাথমিকভাবে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

স্বাআলো/এস

.

Author
খুলনা ব্যুরো