কিশোরীকে হত্যা, আসামি গ্রেফতার

পটুয়াখালীর গলাচিপায় স্বপ্না নামের এক কিশোরীকে (১৩) ক্ষেতের কলই শাক তোলার অপরাধে তলপেটে লাথি মেরে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার চরকাজল ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ছোট শিবা এলাকা থেকে নিখোঁজের দুইদিন পর রবিবার (১৪ জানুয়ারী) রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্বপ্নার লাশ উদ্ধার করে গলাচিপা থানা পুলিশ। এ ঘটনায় রেজাউল সরদার (৩৫) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে কিশোরী স্বপ্নার বাবা মো. বাবুল ফকির (৩৫) বাদী হয়ে সোমবার (১৬ জানুয়ারী) গলাচিপা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর ১২, তারিখ- ১৬/০১/২০২৩।

মামলা ও শিশুর পরিবার সূত্রে জানা যায়, রবিবার সকালে স্বপ্না কলই শাক তুলতে এলাকার সোবহান সর্দারের ছেলে রেজাউল সর্দারের (৪০) ক্ষেতে যায়। সে সময় তার সাথে দাদি আয়শা বেগমও ছিলো। শাক তোলা শেষ করে দাদি বাড়ি ফিরলেও সে তখনো ক্ষেতে শাক তুলছিলো। পরে অনেক খোঁজাখুজি করেও তার সন্ধান না পাওয়ায় পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়। পুলিশ রেজাউলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদে স্বপ্না আক্তারকে তলপেটে লাথি মেরে হত্যা করে লাশ গুমের কথা স্বীকার করে রেজাউল। তার দেখানো স্থান থেকে গতকাল রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। রেজাউলকে সোমবার গলাচিপা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করা হয়।

গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শোনিত কুমার গায়েন জানান, প্রতিবেশী রেজাউলের ক্ষেতের কলই শাক তোলার অপরাধে তলপেটে লাথি মেরে স্বপ্নাকে হত্যা করা হয়েছে বলে রেজাউল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে। হত্যার পরে লাশ গুমের অভিযোগে পুলিশ অভিযুক্ত রেজাউলকে আটক করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালীতে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা হয়েছে।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
জেলা প্রতিনিধি, পটুয়াখালী