দেবিদাসপুর সড়কের সমস্যা দ্রুত নিরসন হোক

যশোরের মণিরামপুরের এখন সবচেয়ে বড় সমস্যার নাম দেবিদামপুর সড়ক। সড়কটির উন্নয়ন কাজের জন্য এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। কথায় আছে এক মণ দুধের ভেতর একফোটা ‘গো-চুনা’ পড়লে যেমন পুরো দুধ খাওয়ার অনুপয়োগী হয়ে যায় তদ্রুপ দুই কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়কটির উন্নয়ন চললেও সব যেনো স্লান হয়ে যাচ্ছে সৃষ্ট সমস্যার জন্য। সমস্যাটি হলো উন্নয়নের জন্য খোড়াখুড়ির কারণ, যা নিরসনে কর্তৃপক্ষের কোনোই মাথা ব্যথা নেই।

গণমাধ্যমে এ সমস্যা নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এই সড়কটি দিয়ে এলাকার মানুষ, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ যানবাহন চলাচল করে। এই সড়ক দিয়ে কত গাড়ি চলাচল করে তা স্বচক্ষে না দেখলে কেউ অনুমান করতে পারেন না। কথা হলো উন্নয়নের প্রশ্নে ভাঙাগড়া হবেই। তাতে কারো কোনো আপত্তি থাকার কথা নয় এবং আপত্তি যুক্তিগ্রাহ্যও নয়। সড়কটি আগে সলিংয়ের তৈরি ছিলো। সেই সলিং তুলে পিচের রাস্তা করার কথা ছিলো। এলাকাবাসী এতে খুশি হয়েছিলেন। কিন্তু তাদের সে খুশি আজ বেদনার কারণ হয়ে দাঁড়িছে।

এ জন্য যে সমস্যা সৃষ্টি হবে তা নিরসনের ব্যবস্থাও থাকতে হবে। সড়কটির একপাশ খোড়ার ফলে ওয়ানওয়ে যাচ্ছে। এই ওয়ানওয়ে দিয়ে চলাচল করতে গিয়েই যত সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু নিয়ন্ত্রণের জন্য গত পাঁচ মাসেও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

গত আগস্ট মাস থেকে এ দুর্ভোগ লাখ লাখ মানুষ নীরবে পোহায়ে চলেছেন। একটি গাড়ি এখানে আটকে গেলে এক-দেড় ঘন্টার আগে বের হতে পারে না। প্রতিনিয়ত এখানকার এই মোকাবিলা করে পথ চলা মানুষের জন্য দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। এই দীর্ঘ সময় ধরে একটি সমস্যা চলতে দেয়া যায় না। এজন্য কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নিতেই হবে।

স্বাআলো/এস

.