নুতন যুগে চট্টগ্রাম বন্দর: প্রথমবারের মতো ভিড়লো ২০০ মিটার লম্বা জাহাজ

চট্টগ্রাম বন্দরের জেটিতে ভিড়েছে প্রায় ২০০ মিটার লম্বা একটি জাহাজ। মার্শাল আইল্যান্ডের পতাকাবাহী জাহাজটির নাম ‘এমভি কমন এটলাস’।

রবিবার (১৫ জানুয়ারী) বিকেল ৫টার দিকে চট্টগ্রাম বন্দরের সিসিটি-১ জেটিতে জাহাজটি ভেড়ানো হয়। চট্টগ্রাম বন্দর সচিব ওমর ফারুক এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, ৩৬ হাজার টন চিনিবাহী ১০ মিটার ড্রাফট ও ২০০ মিটার দৈর্ঘ্যের এ জাহাজ বন্দর চ্যানেল দিয়ে ঢুকে জেটিতে ভেড়ার মাধ্যমে বন্দরের ইতিহাসে নতুন মাইলফলক তৈরি করেছে।

বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের ফলে বন্দর চ্যানেলের গভীরতা আগের চেয়ে বেড়েছে। ফলে বড় জাহাজ ভেড়ার সুযোগ তৈরি হওয়ায় কমবে আমদানি খরচ।

এখন আরো অতিরিক্ত ১ হাজার থেকে ১১০০ একক অতিরিক্ত কন্টেইনারবাহি জাহাজ ভিড়তে পারবে বন্দরে। সেই সাথে বৈদেশিক বাণিজ্যে ইতিবাচক প্রভাব পড়ার পাশাপাশি, বন্দর দিয়ে পণ্য পরিবহনে অর্থের সাশ্রয় হবে বলে জানায় তারা।

চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৯৯৭ সাল থেকে ২০১৪ পর্যন্ত ১৮৬ মিটার লম্বা এবং ৯ দশমিক ১০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ বন্দরে ভেড়ানো যেত। এরপর আরো বড় জাহাজ ভেড়ানোর সুবিধা চালু করা হয়। ২০১৫ সাল থেকে সর্বোচ্চ ১৯০ মিটার লম্বা ও সাড়ে ৯ মিটার ড্রাফটের জাহাজ বন্দরে ভেড়ানো যেত।

চট্টগ্রাম বন্দর জোয়ার-ভাটানির্ভর একটি প্রাকৃতিক বন্দর। বন্দরের জাহাজ চলাচলের পথে পানির গভীরতা কম। জোয়ারের সময় পানির উচ্চতা বাড়লে জাহাজগুলো বন্দরের নিজস্ব পাইলটের মাধ্যমে সাগর থেকে কর্ণফুলী নদী দিয়ে মূল জেটিতে আনা-নেওয়া করা হয়। অন্যদিকে গুপ্ত বাঁকে প্রশস্ততার সীমাবদ্ধতার কারণে জাহাজের দৈর্ঘ্য বাড়াতে বড় বাধা ছিলো। কারণ, গুপ্ত বাঁক দিয়ে প্রায় ৯০ ডিগ্রি ঘুরিয়ে জাহাজ জেটিতে আনা–নেয়া করতে হয়।

স্বাআলো/এসএস

.

Author
চট্টগ্রাম ব্যুরো