ছাত্রীর সঙ্গে প্রেম, শিক্ষককে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিবাহিত হয়েও ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে আট লাখ রুপি জরিমানা গুনেছেন এক স্কুল শিক্ষক, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ১০ লাখ ৪৫ হাজার টাকারও বেশি। সম্প্রতি প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে এই জরিমানা গুনতে হয় ওই ব্যক্তির।

জানা গেছে, পশ্চিম মেদিনীপুরের শ্রীরামপুর গ্রামের এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন কেশপুর থানার নেড়াদেউলের বাসিন্দা এক স্কুল শিক্ষক। কয়েক দিন আগে প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে তার বাড়ির কাছে গিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি।

অভিযোগ উঠেছে, তাকে দেখা মাত্র ঘিরে ধরে তরুণীর পরিবারের সদস্যরা। তারপর মোটা দড়ি দিয়ে বেঁধে বেধড়ক মারধর করা হয়। এ সময় যন্ত্রণায় কুঁকড়ে যান ওই ব্যক্তি, কিন্তু মার থামেনি। সেই মারের দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করেন অনেকে। পরে সোশ্যালে ছড়িয়ে দেয়া হয় ওই ভিডিও।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিষয়টি মারধরেই শেষ হয়নি। বিবাহিত হয়ে প্রেম করার অপরাধে সালিশ সভা ডেকে ওই শিক্ষককে জরিমানা করা হয়। যদিও আহত ওই শিক্ষক এখন কলকাতার একটি সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চন্দ্রকোনা থানা পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় কেউ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেননি। আহত শিক্ষকের পরিবারও এ নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েকজন জানিয়েছেন, এ ঘটনায় বিজেপির কয়েকজন নেতা এবং গ্রামের মাতব্বররা জড়িত। ফলে ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

স্বাআলো/এসএ

.

Author
আন্তর্জাতিক ডেস্ক